বিমান বাহিনীর কর্মকর্তা ধর্ষিত মার্কিন সিনেটরবিমান বাহিনীতে থাকাকালে ‘ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা তাকে লুণ্ঠন করে ধর্ষণ করেছিলেন’ বলে সহকর্মীদের জানিয়েছেন এক মার্কিন সিনেটর।

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীতে যৌন নিপীড়ন বিষয়ক এক শুনানিতে সিনেটর মার্থা ম্যাকস্যালি এসব কথা বলেন, খবর বিবিসির।

সিনেটর ম্যাকস্যালি যুদ্ধে যোগ দেওয়া মার্কিন যুদ্ধবিমানের প্রথম নারী পাইলট ছিলেন।

অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যের এ রিপাবলিকান নেত্রী জানান, লজ্জিত ও বিভ্রান্তবোধ করায় এবং পদ্ধতির ওপর অবিশ্বাসের কারণে ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে অভিযোগ করেননি তিনি।

বুধবার সিনেটের সশস্ত্র বাহিনী বিষয়ক সাবকমিটির ওই শুনানিকালে ম্যাকস্যালি বলেন, “অনেক বছর ধরে আমি চুপ করে ছিলাম। কিন্তু সামরিক বাহিনী এই কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়ায় এবং সেখানে এসব ঘটনায় যথেষ্ট প্রতিক্রিয়া না হওয়ায় পরবর্তীতে আমি অনুভব করলাম কিছু লোককে জানানো দরকার যে আমিও নিপীড়িত হয়েছিলাম।

“সাধারণভাবে আমার অভিজ্ঞতা শেয়ার করা হলে তা কিভাবে দেখা হবে তা নিয়ে আতঙ্কিত ছিলাম আমি। হতাশায় ১৮ বছর বয়সে বিমান বাহিনীর চাকরি থেকে প্রায় বিচ্যুত হয়ে পড়েছিলাম।”

ম্যাকস্যালির এই সাক্ষ্যে তিনি ‘ভীষণভাবে তাড়িত’ হয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন কমিটির শীর্ষ পর্যায়ের ডেমোক্রেট সিনেটর ক্রিস্টেন জিলিব্রান্ড।

২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রের পুরো সামরিক বাহিনীজুড়ে যৌন নিপীড়নের ঘটনা প্রায় ১০ শতাংশ বেড়ে গিয়েছিল।

মার্কিন বিমান বাহিনীতে ২৬ বছর চাকরি করেছেন ম্যাকস্যালি। ২০১০ সালে অবসর নেওয়ার আগে কর্নেল ছিলেন তিনি।

এরপর দুই মেয়াদে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন। গত বছর সিনেটর নির্বাচিত হন তিনি।

নিজের যৌন নিপীড়নের অভিজ্ঞতা নিয়ে আগেও কথা বলেছিলেন ম্যাকস্যালি।

গত বছর সিনেট নির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে প্রচারণাকালে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে তিনি জানিয়েছিলেন, ১৭ বছর বয়সে হাই স্কুলের অ্যাথলেটিক কোচ তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করার জন্য তাকে চাপ দিয়েছিলেন।

সামরিক বাহিনীতে থাকাকালেও তিনি যৌন হেনেস্তার শিকার হয়েছিলেন বলে জানিয়েছিলেন।

ধর্ষিত হওয়ার কথা আরেক মার্কিন নারী সিনেটরও জানুয়ারিতে জানিয়েছেন।

সেনাবাহিনীর যুদ্ধঅভিজ্ঞ সাবেক কর্মকর্তা জোনি আর্নস্ট জানিয়েছিলেন, আইওয়া অঙ্গরাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী থাকাকালে এক অভদ্র বয়ফ্রেন্ড তাকে যৌন নিপীড়ন করেছিল।

তবে ঘটনার বিষয়ে পুলিশের কাছে তখন তিনি কোনো অভিযোগ করেননি বলে আইওয়া থেকে নির্বাচিত এই রিপাবলিকান সিনেটর জানিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য