বিশ্বের দেশগুলোর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য ঘাটতি গতবছর বেড়ে ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চে পৌঁছেছে। হোঁচট খেয়েছে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাণিজ্য ঘাটতি হ্রাসের পরিকল্পনা।

যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিভাগ বুধবার জানিয়েছে, ডিসেম্বরে বাণিজ্য ঘাটতি ১৮ দশকি ৮ শতাংশ বেড়ে গতবছর মোট ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৬২ হাজার ১শ’ কোটি ডলারে।

২০০৮ সালের পর ২০১৮ সালে বাণিজ্য ঘাটতির এ পরিমাণ এটিই সবচেয়ে বেশি। ২০১৭ সালে যা ছিল ৫৫ হাজার ২৩০ কোটি ডলার।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মূলনীতিই ছিল বাণিজ্য ঘাটতি কমানো। কিন্তু তার সংরক্ষণবাদী বাণিজ্য নীতির পরও কমেনি ঘাটতি।

২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্র যত পণ্য রপ্তানি করেছে তার তুলনায় আমদানি করেছে বেশি। সরকারি হিসাবে দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্র গতবছর ১৪ হাজার ১৯০ কোটি ডলারের পণ্য রপ্তানি করলেও আমদানি করেছে ২১ হাজার ৭৭০ কোটি ডলারের পণ্য।

এ থেকে দেখা যাচ্ছে, ২০০৮ সালে বিশ্বে অর্থনৈতিক সংকট শুরুর সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে মন্দা দেখা দেওয়ার পর থেকে বর্তমান সময়েই বাণিজ্য ঘাটতি সবচেয়ে বেড়েছে।

সম্প্রতি চীনের সঙ্গে বাণিজ্য যুদ্ধ চলছে যুক্তরাষ্ট্রের। বাণিজ্যে চীনের অন্যায় প্রতিযোগিতার কথা বলে ট্রাম্প তাদের পণ্যে কয়েক ধাপে বিপুল পরিমাণ শুল্ক আরোপ করেছেন। পাল্টা যুক্তরাষ্ট্রের পণ্যে শুল্ক আরোপ করেছে চীনও।

তবে বাণিজ্যযুদ্ধে অবসানে দু’দেশ আলোচনাও শুরু করেছে এবং মার্চের শেষে তারা বাণিজ্যচুক্তিতেও পৌঁছতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দু’দেশের বাণিজ্য সম্পর্কিত নতুন তথ্যে দেখা গেছে, যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের মধ্যে গতবছর বাণিজ্য ঘাটতি বেড়ে ৪১ হাজার ৯২০ কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য