দিনাজপুরে মাদকের অর্থ ভাগবাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে হত্যার ঘটনায় আটক ২দিনাজপুর সংবাদাতাঃ সীমান্ত এলাকায় মাদক ব্যবসার অর্থ ভাগবাটোয়ারারকে কেন্দ্র করে হত্যা ঘটনায় পুলিশ ২জনকে গ্রেফতার করে। ১ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছে।

দিনাজপুর পিবিআই এর পরিদর্শক এবং এই চাঞ্চল্যকর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শফিউল আলম জানান, এই মামলায় গ্রেফতারকৃত ২ জন আসামীর মধ্যে অন্যতম আসামী সদর উপজেলার দানিহারী গ্রামের মোশাররফ হোসেনের পুত্র রুবেল (২২) আজ বুধবার দুপুর ১২টায় সদর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইসমাইল হোসেনের নিকট হত্যা ঘটনার বর্ণনা দিয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেছে।

সূত্রটি জানায়, হত্যা ঘটনার বর্ণনায় জানা যায়- গত বছর ২০ জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় সদর উপজেলার সীমান্তবর্তী দানিহারী গ্রামে একই গ্রামের বাসিন্দা নিহত আতিউর রহমান আতুল (১৭) এর সাথে এজাহারে বর্ণিত ৫ আসামী রুবেল, ইমরান, রাসেল, আরিফ ও সোহাগের মধ্যে মাদক ব্যবসার অর্থ ভাগবাটোয়ারা নিয়ে বিভেদ সৃষ্টি হয়।

এই ঘটনার এক পর্যায়ে সহযোগীদের হাতে আতিউর রহমান আতুল নির্মমভাবে খুন হয়। ঘটনার পর আতুলের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন নিয়ে আসামীরা তার লাশ ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।

এই ঘটনায় নিহত আতুলের পিতা আনসার আলী বাদী হয়ে ঘটনার পর দিন কোতয়ালী থানায় ৫জনকে আসামী করে ১টি হত্যা মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের পর থেকে আসামীরা পলাতক ছিল। মাদক ব্যবসাকে কেন্দ্র করে হত্যা ঘটনা মামলা হওয়ায় ঘটনাটি পুলিশ বিভাগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পিবিআইকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়।

পুলিশের সূত্রটি জানায়, পিবিআই আতুলের ব্যবহৃত মোবাইলটি আসামীরা ব্যবহার করছে এ সূত্র ধরেই আসামীদের ধরতে মাঠে নামে। গত ২ ফেব্রুয়ারী সকালে পিবিআই এর অভিযান টিম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার ঢাকা মোড় থেকে আসামী রুবেল ও ইমরান হোসেনকে আটক করতে সক্ষম হয়।

এই ২ জনকে আদালত থেকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। আজ বুধবার আটক রুবেল বিচারকের নিকট ঘটনার বর্ণনা দিয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন। পরে বিচারক আটক ২ জনকে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ প্রদান করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য