মো: জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের ২ মাস গত হলেও ভোট কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকারী গ্রাম পুলিশের সম্মানি ভাতা দেয়া হয়নি। ফলে সংসদ নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করেও সৈয়দপুরসহ নীলফামারী জেলায় ৬৩৫ জন গ্রাম পুলিশের সদস্য ভাতা পাননি বলে তারা জানিয়েছেন।

গ্রাম পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে গ্রাম পুলিশের সদস্যরা ভোট কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করেন। নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরসহ ৬ উপজেলায় ৬৩৫ জন গ্রাম পুলিশ রয়েছেন। তারা স্ব-স্ব উপজেলায় বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করেন। এ দায়িত্ব পালনের জন্য বিধিমত তাদের সম্মানি ভাতা দেয়া হয়ে থাকে। কিন্তু সংসদ নির্বাচনের ২ মাস পেরিয়ে গেলেও তাদের সম্মানী ভাতা প্রদান করা হয়নি।

গ্রাম পুলিশের সদস্যরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন দপ্তরে ধর্ণা দিলেও তাদের ভাতা প্রদান করা হয়নি। উপজেলা দপ্তর থেকে বলা হচ্ছে জেলা প্রশাসন থেকে অর্থ আসলে ভাতা দেয়া হবে। কিন্তু গত দুই মাসেও ভাতা পায়নি গ্রাম পুলিশের সদস্যরা।

এ নিয়ে সৈয়দপুর উপজেলা গ্রাম পুলিশের সদস্য মো. লতিফ, রবিউল ইসলাম ও জামসেদ হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ভাতার জন্য গত ২ মাস যাবত তারা উপজেলা প্রশাসনে ধর্ণা দিচ্ছি। কিন্তু কর্মকর্তারা ভাতা প্রদানের বিষয়ে সঠিক তথ্য দিতে পারছেন না। তারা আজকালের মধ্যে হবে বলে আমাদের বিদায় দিচ্ছেন। অথচ ভোট সম্পন্নের পর ভাতা দেয়ার কথা বলে তাদের কাছ থেকে কাগজে আগাম স্বাক্ষর নিয়েছে, কিন্তু আমরা ভাতা পাইনি।

এ ব্যাপারে নীলফামারী জেলা গ্রাম পুলিশ কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আজিজুল ইসলামের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, নীলফামারী জেলার ৬ টি উপজেলার গ্রাম পুলিশের সদস্যরা ভাতা এখনও পায়নি। এ নিয়ে নীলফামারী জেলা নির্বাচন অফিসার ও জেলা প্রশাসকের দপ্তরে যোগাযোগ করলেও বকেয়া ভাতার বিষয়ে সুরাহা করা হচ্ছে না।

জেলা নির্বাচন দপ্তরে গেলে বলা হয় জেলা প্রশাসন দপ্তর ভাতা দেবে, আবার জেলা প্রশাসন দপ্তরে গেলে তারা বলছেন জেলা নির্বাচন দপ্তর দেবে। কিন্তু কেউই ভাতা পরিশোধে দায়িত্ব নিচ্ছেন না। তিনি গ্রাম পুলিশ সদস্যদের দ্রুত ভাতা প্রদানের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে, নীলফামারী জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন মুঠোফোনে জানান, স্ব-স্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসাররা গ্রাম পুলিশের ভাতা প্রদান করবেন। কিন্তু এতদিনেও ভাতা না পাওয়ার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য