৫ জনের মৃত্যর ঘটনায় এলাকা পরিদর্শনে ঢাকার মডিকেল টিমমাসুদ রানা পলক, ঠাকুরগাঁও : অজ্ঞাত একটি রােগ মাত্র ২০ দিনের ব্যবধানে একই পরিবারের ৫ জনের মৃত্যুর আলােচিত ঘটনায় ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইউনিয়নের ভান্ডারদহ গ্রামের আবু তাহেরের বাড়ী পরিদর্শন করেছে ঢাকা থেকে আসা রােগতত্ত্ব, রােগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষনা প্রতিষ্ঠানের ৫ সদস্যের একটি তদন্ত টিম।

রােগতত্ত্ব, রােগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষনা প্রতিষ্ঠানের ৫ সদস্য তদন্ত টিমের সদস্যরা হলেন-ডা. গাজী শাহ আলম, ডা. তানজিনা নওরীন, ডা.দেবাশীষ কুমার শাহ, ডা.শাহনাজ পারভীন ও ডা.ইসমাইল খান।

বুধবার দুপুরে মৃত পরিবারের বাড়ীতে তদন্ত টিম পৌছানাের পরে ওই পরিবারের অন্যান্য সদস্য, এলাকাবাসী, স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সাথে কথা বলেন এবং আবু তাহেরের বাড়ীর ৪টি কক্ষ থেকে পরীক্ষা-নীরিক্ষার জন্য বিভিন্ন নমুনা সংগ্রহ করেন।

ঘটনাস্থলে পরিদর্শন শেষে ঠাকুরগাঁও ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন শাহজাহান নেওয়াজ সাংবাদিকদের বলেন, রােগতত্ত্ব, রােগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষনা প্রতিষ্ঠানে ৫ সদস্য তদন্ত টিমের সদস্যরা ঘটনা¯স্থলে থেকে প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করেছেন। রাজশাহী থেকে আরেকটি মেডিকেল টিম ওই উদ্দেশ্যে ঠাকুরগাঁওয়ে আসছেন। দুটা মেডিকেল টিমেই ঠাকুরগাঁওয়ে ৩ দিন অবস্থান করবে। সংগৃহিত নমুনা ঢাকায় পরীক্ষার জন্য পাঠানাে হবে। ঢাকা থেকে পরীক্ষা নীরিক্ষা শেষে প্রতিবেদন আসলেই ৫ জনের মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে বলে আশা করেছেন তিনি।

এদিকে এলাকার লােকজন বলেছেন, ঘটনাটি কােন ভাইরাস জনিত কারণ নয়। আবু তাহের পেশাগত কবিরাজ ছিলন। দেবী-দেবতার পূজা করে আসতেন। পূজায় সমস্যা সৃষ্টি হওয়ার কারণে প্রথমে তার মৃত্যু এবং পরে ধীরে ধীরে তার পরিবারের লােকজন মারা গেছেন বলে এলাকার লােকজন কুসংষ্কার ছােড়াছেন। তবে এসব কথা মেডিকেল টিমকে জানালেও বিষয়টি গুরুত্ব দেয়নি তারা।

উল্লেখ্য যে, গত ৯ ফেব্রুয়ারি অজ্ঞাত একটি রােগ ভান্ডারাদহ মরিচপাড়া গ্রামের ফজর আলীর ছেলে আবু তাহের (৫৫) মৃত্যুবরণ করেন। এরপর ২১ ফেব্রুয়ারি একই দিনে মারা যান আবু তাহেরের জামাতা হাবিবুর রহমান (৩৫) ও স্ত্রী হােসনে আরা (৪৫)। এর দুইদিন পরে ২৪ ফেব্রুয়ারি আবু তাহেরের দুই ছেলে ইউসুফ আলী (৩০) ও মেহেদী হাসান মৃত্যুবরণ ও ওই পরিবারের ৬/৭ জন অসুস্থ হলে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয়।

উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আক্রান্ত এলাকার ১ কিলােমিটার চলাচল নিষেধাজ্ঞা জারিসহ মুখে মার্কস পড়ে চলাফেরা এবং স্থানীয় দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয়। তবে এলাকায় এখন কােন আতঙ্ক নয়। প্রতিষ্ঠান দুটি আগামীকাল বৃহস্পতিবার খুলে দেয়া হবে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানা গেছে ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য