দিনাজপুরে খাল সংস্কার ও পয়ঃনিস্কাশনের দাবীতে মানববন্ধনদিনাজপুর সংবাদাতাঃ “খাল বাঁচাও-পরিবেশ বাঁচাও-মানুষ বাঁচাও” শ্লোগানকে সামনে রেখে ঘাগড়া ও গীর্জা ক্যানেলের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ,সংস্কার এবং পয়ঃ নিস্কাশনের দাবীতে দিনাজপুরে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে ভুক্তভোগি এলাকাবাসী।

দিনাজপুর শহরের পশ্চিম চাউলিয়া পট্রিতে ঘাগড়া ও গীর্জা ক্যানেল পাড়ে আজ রোববার সকাল ১১টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী এ ব্যতিক্রম মানববন্ধনে নারী-পুরুষ,আবাল-বৃদ্ধ-বনিতাসহ শত শত ভুক্তভোগি মানুষ অংশ নেয়। এ সময় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন,আবুল কালাম বাবুল,ওসমান গণি,মোকলেস আলী,মাওলানা আব্দুল বাতেন,আবুল কালাম,আনোয়ারি,কাওসার আলীসহ অন্যরা।

বক্তরা অভিযোগ করেন,পৌর কর্তৃপক্ষের অবহেলা আর উদাসীনতার কারণে অবৈধ দখলদারদের কড়াল গ্রাসে দিনাজপুর শহরের মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী ঘাগড়া ও গীর্জা ক্যানেল। ১৪ কিলো মিটার দীর্ঘ এই ঘাগড়া ও গীর্জা ক্যানেল এখন অবৈধ দখলের স্থাপনা আর নোংরা,আবর্জনার স্তুপে প্রায় বিপন্ন। একারণে শুধু বর্ষা নয়, শুষ্ক মৌসুমেও সামান্য বৃষিপাতে ময়লা পানিতে সয়লাফ হয় দিনাজপুর শহরের পাড়া-মহল্লা। দীর্ঘদিন থাকছে জলাবদ্ধতা।

ভারসাম্য হারাচ্ছে পরিবেশ।এক সময় স্বচ্ছ পানির উৎস এই খাল দুু’টি এখন নোংরা-আবর্জনা’র স্তুপ। উপচেপড়া ময়লা পানি’র দূর্গন্ধে উপায় নেই নিশ্বাস নেয়ার। এতে নানা রোগ-বালাই ছড়িয়ে পড়ছে এলাকায়।কিন্তু পরিষ্কার ও সংস্কার করারও উদ্যোগ নেই পৌর কর্তৃপক্ষের।

বক্তারা আরো জানান,দেখে বুঝার উপায় নেই, এটা ঘাগড়া না গীর্জা ক্যানেল ! প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষার বৃট্রিশ আমলে খননকৃত প্রায় ১৪ কিলোমিটার দীর্ঘ ঘাগড়া না গীর্জা ক্যানেল এখন নির্বিচার আগ্রাসনের শিকার হয়েছে। দখলের ধারাবাহিকতায় মরে যেতে বসেছে এই খাল দু’টি। ১৪ কিলো মিটার দীর্ঘ ও ৩০ থেকে ৪০ বর্গ ফুট প্রস্থ এই ঘাগড়া ও গীর্জা ক্যানেল এখন সংকুচত হয়েছে।

খাল ভরাট করে বিস্তৃত হচ্ছে শহর। গড়ে উঠেছে বহুতল ভবন. ঘর-বাড়ি,দোকান-পাট, রাস্তা-ঘাট,হাট-বাজার,ক্লাব-সমিতির অফিস ও ধর্মীয় উপাসানালয়। পানি প্রবাহ আটকে দেওয়া হয়েছে। একারণে শুধু বর্ষা নয়, শুষ্ক মৌসুমেও সামান্য বৃষিপাতে ময়লা পানিতে সয়লাফ হচ্ছে দিনাজপুর শহর। দীর্ঘদিন থাকছে জলাবদ্ধতা। এ কারণে প্রকৃতিতে বিপর্যয় নেমে আসছে বলে মনে করছেন তারা।

এব্যাপারে দিনাজপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র আহামেদুজ্জামান ডাব্লু’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,কালের সাক্ষী হয়ে টিকে থাকা এই ঘাগড়া ও গীর্জা ক্যানেল অবৈধ দখলদারদের আগ্রাসনের শিকার।এখন প্রায় এর অস্তিত্ব বিপন্ন। তা উদ্ধার ও সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।

এ জন্য দিনাজপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য হুইপ ইকবালুর রহিমের হস্তক্ষেপে একটি প্রকল্প ইতোমধ্যে পাস হয়েছে। অতিশীঘ্রই খালের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও খাল সংস্কারের কাজ শুরু হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য