দিনাজপুর স্কুল অব লিবারেটরস এর বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও বনভোজন অনুষ্ঠিতদিনাজপুর সংবাদাতাঃ জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম বলেছেন, সুস্থ্য শরীর ও মন সুন্দর-সতেজ থাকলে সন্তানরা পড়ালেখার প্রতি মনোযোগী হয়ে থাকে। আর এর জন্য খেলা ধুলা আর সংস্কৃতি চর্চার বিকল্প নেই।

১৬ ফেব্রুয়ারী শনিবার সকালে দিনাজপুর জেলা স্টেডিয়ামে শহরের খ্যাতনামা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‘ দিনাজপুর স্কুল অব লিবারেটরস’ এর বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও বনভোজন অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে জেলা প্রশাসক বলেন, আজকে যে শিশু শিক্ষার্থী এই স্কুলে পড়ালেখা করছে, আগামী দিনে তারাই দেশ পরিচালনা করবে। আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশের কাতারে সামিল করতে বর্তমান সরকারের যে রূপকল্প তা বাস্তবায়ন করতে সন্তানদের জ্ঞানে-বিজ্ঞানে, খেলাধুলা, সংস্কৃতি চর্চাসহ সর্বক্ষেত্রে চৌকষ নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। এর জন্য সন্তানদের পড়ালেখার পাশাপাশি নিজেদের যোগ্য করে করে গড়ে তুলতে প্রয়োজনীয় ক্ষেত্র তৈরী করে দিতে হবে।

দিনাজপুর স্কুল অব লিবারেটরস এর বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও বনভোজন অনুষ্ঠিতস্কুলের শিক্ষকদের উদ্দেশ্য করে জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম বলেন, শিক্ষকরা হলেন পথ প্রদশর্ক। সন্তানদের আদর্শ নাগরিক হিসেবে গেেড় তেলার দায়িত্ব হল শিক্ষকদের। সমাজের ভাল-মন্দ দিকগুলো তুল ধরা, বাবা-মাসহ পরিবার ও সমাজের বড়দের সম্মান করতে শেখা, প্রকৃত দেশপ্রেমিক হতে শেখা, মাদকের ভয়বহতা থেকে দূরে পাঠ্য বইয়ের পড়ালেখার পাশাপাশি এসব বিষয়ে শিক্ষা দেওয়া শিক্ষকদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাতীয় সঙ্গীতের তালে তালে জেলা প্রশাসক জাতীয় পতাকা, স্কুল অব লিবারেটরস এর ভাইস চেয়ারম্যান বিশিষ্ট সাংবাদিক ও গবেষক মো. আসাদুল্লাহ্ সরকার অলিম্পিক পতাকা এবং স্কুলের অধ্যক্ষ এ কে এম জিয়াউল হক সিজার স্কুলের পতাকা উত্তোলন করেন। এরপর এক ঝাঁক বেলুন আকাশে উড়িয়ে জেলা প্রশাসক দিনব্যাপী বার্ষিক ক্রীড়া ও বনভোজন অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষনা করেন।

দিনাজপুর স্কুল অব লিবারেটরস এর বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও বনভোজন অনুষ্ঠিতপ্লে থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত মোট ৫৫টি ইভেন্টে অনুষ্ঠিত ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় দিনাজপুর স্কুল অব লিবারেটরস এর দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী ছাড়াও উপস্থিত অভিভাবকবৃন্দ পৃথক ইভেন্টে খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করেন।

প্রতিযোগিতা ও দুপুরে বনভোজন শেষে সন্ধ্যায় স্টেডিয়াম মাঠে নির্মিত মঞ্চে স্কুলের ভাইস চেয়ারম্যান মো. আসাদুল্লাহ্ সরকার, অন্যতম পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান রূপম এবং অধ্যক্ষ এ কে এম জিয়াউল হক সিজার বিজয়ীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য