কয়লা নিয়ে ষড়যন্ত্র করলেই প্রতিহত করার ঘোষনা ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ী কয়লা খনি নিয়ে যেই ষড়যন্ত্র করুক না কেন? তা প্রতিহত করার ঘোষনা দিয়েছে, তেল গ্রাস খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি।

গতকাল শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টায় ফুলবাড়ী বালিকা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে, তেল গ্রাস খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ফুলবাড়ী শাখার উদ্যোগে ফুলবাড়ীর কয়লা সম্পদ ও জনতার ভাবনা শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য এই প্রতিহত করার ঘোষনা দেন, তেল গ্রাস খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ।

ফুলবাড়ীর কয়লা সম্পদ ও জনতার ভাবনা শীর্ষক মতবিনিময় সভায়, তেল গ্রাস খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ফুলবাড়ী শাখার আহবায়ক সৈয়দ সাইফুল ইসলাম জুয়েলের সভাপতিত্বে, অনান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, তেল গ্রাস খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য প্রকৌশলী কল্লোল, সিপিবি’র কেন্দ্রিয় নেতা আলতাফ হোসেন, আব্দুল খালেক. ফুলবাড়ী শাখার সদস্য সচিব জয়প্রকাশ গুপ্ত, ফুলবাড়ী শাখার অন্যতম নেতা সঞ্জিৎ প্রসাদ জিতু, শফিকুল ইসলাম শিকদার, ডাক্তার ওয়াজেদুর রহমান বাবলু, মোশারফ হোসেন বাবু ও নাজার আহম্মেদ প্রমুখ।

অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ আরো বলেন, ২০০৬ সালে ফুলবাড়ীর গণঅভ্যুত্থানের মধ্যে দিয়ে ফুলবাড়ী বাসীর সাথে যে চুক্তি হয়েছিল তাতে উল্ল্খে করা আছে, এই দেশে এশিয়া এনার্জি আর থাকতে পারবে না।

সেই সময় বর্তমার প্রধান মন্ত্রী, বিরোধী দলে থাকা অবস্থায় ফুলবাড়ী বাসীর ৬দফা চুক্তি বাস্তবায়নের অঙ্গিকার করেছিল। অথচ তিনি সরকার গঠন করে সেই চুক্তি বাস্তবায়ন না করে ফুলবাড়ীবাসীর নিকট দেয়া অঙ্গিকার ভঙ্গ করেছেন।

তিনি বলেন এশিয়া এনার্জির মুল কোম্পানী জিসিএম সম্প্রতিক একটি চিনা কোম্পানীর সাথে ফুলবাড়ীর কয়লা নিয়ে তাপবিদুৎ কেন্দ্র নির্মানের চুক্তি করেছে। তিনি বলেন এই চুক্তি সম্পুর্ন অবৈধ্য, ফুলবাড়ীতে এসে বা ফুলবাড়ী নিয়ে, যে ষষড়যন্ত্র করা হোক না কেন? ফুলবাড়ীবাসীকে সাথে নিয়ে ২০০৬ সালের ২৬ আগষ্টের ন্যায় আবারো গণআন্দোলন গড়ে তুলে, সেই ষড়যন্ত্র প্রতিহত করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য