কুড়িগ্রামে মাতৃ ও শিশু মৃত্যুহার কমাতে সিমসন প্রকল্পবিভিন্ন প্রতিকূলতার কারণে প্রসবকালিন সেবা থেকে বঞ্চিত মা ও শিশুদের নিরাপদ মাতৃত্বসেবায় কুড়িগ্রামে উদ্বোধন হলো সিমসন প্রকল্পের।

বুধবার সকালে কুড়িগ্রাম টেরেডেস হোম ফাউন্ডেশন প্রশিক্ষণ কক্ষে প্রকল্পের শুভ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ডিরেক্টর এমসিএইচ সার্ভিসেস ও লাইন ডিরেক্টর এমসিআরএইচ ডা: মোহাম্মদ শরীফ।

জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন’র সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন রংপুর পরিবার পরিকল্পনা অফিসের বিভাগীয় পরিচালক মাহাবুব আলম, সিভিল সার্জন ডা: আমিনুল ইসলাম, ডেপুটি ডিরেক্টর ডা: নজরুল ইসলাম, মুসাইর-উল-ইসলাম, তৃপ্তি বালা, টিডিএইচ ফাউন্ডেশনের হেড অব প্রোগ্রাম আয়েশা সিদ্দিকা, কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ ক্রিস্টোফার মরিস প্রমুখ।

কুড়িগ্রাম টেরেডেস হোম ফাউন্ডেশনের আয়োজনে সিমসন (সিম্যুলেশন ফর এসেনসিয়াল স্কিল ইন অবস্ট্রাটিক এন্ড নিওনেটাল কেয়ার) প্রকল্পের উদ্দেশ্য বর্ণনা করেন সংগঠনের এশিয়া রিজিওনাল হেলথ কো-অর্ডিনেটর কল্লোল মুখার্জী।

এই প্রকল্পের মাধ্যমে কুড়িগ্রামে ৯টি উপজেলায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ৪০টি ইউনিয়নে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র, ৯টি কমিউনিটি ক্লিনিক, মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র এবং জেলা সদর হাসপাতালে কর্মরত প্রসব সেবার সাথে জড়িত চিকিৎসক, নার্স, ডিওয়াইফ, সিএসবিএদের প্রসব ও প্রসবকালিন জটিলতা ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে।

এতে কুড়িগ্রামে মা ও নবজাতকের মৃত্যুর হার কমিয়ে সরকারের ২০২২ সাল পর্যন্ত প বার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সহায়তা করবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য