সংরক্ষিত নারী আসনে আ’লীগের মনোনয়ন পেলেন সৈয়দপুরের নেত্রী রাবেয়া আলিমমো: জাকির হোসেন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) সংবাদদাতা ॥ মনোনীত সংরক্ষিত নারী আসনের নাম ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ। ৮ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে দলটির স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভা শেষে ৪১ জনের নামের তালিকা দেয়া হয়। এর মধ্যে নীলফামারী থেকে সংরক্ষিত আসনে আওয়ামীলীগ এর মনোনয়ন পেলেন দুঃসময়ের ত্যাগী নেত্রী ও বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগ নীলফামারী জেলা শাখার সভাপতি এবং জেলা মহিলা সংস্থার সভাপতি রাবেয়া আলীম। তিনি মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম আলিম উদ্দিনের সহধর্মিণী।

তিনি মনোনয়ন পাওয়ায় সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামীলীগসহ নীলফামারী জেলা জুড়ে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনা এবং নেতাকর্মীদের মধ্যে আনন্দের বন্যা বইছে। অনেক স্থানে এনিয়ে মিষ্টি বিতরণসহ নেত্রীকে অভিবাদন জানিয়ে সোস্যাল মিডিয়া ও স্থানীয় পত্রিকায় শুভেচ্ছা বিজ্ঞাপন দেয়া হয়েছে।

সৈয়দপুর পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক জানান, স্বাধীনতার পর এই প্রথম সৈয়দপুরের কোন মহিলা নেত্রী এধরণের পদে মনোনয়ন পেলো। আমরা অত্যন্ত খুশি। এজন্য আমরা তার দীর্ঘায়ু ও সফলতা কামনা করছি এবং তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ তথা মহিলা আওয়ামীলীগ সুসংগঠিত হবে বলে আশা করি। আমরা অচিরেই আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিয়ে নেত্রীকে সংবর্ধনা প্রদানের ব্যবস্থা করবো।

সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক পৌর মেয়র ও জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আখতার হোসেন বাদল বলেন, সৈয়দপুরের আওয়ামীলীগসহ সর্বস্তরের মহিলাদের জন্য রাবেয়া আলিমের ব্যাপক অবদান রয়েছে। দীর্ঘ বিলম্বে হলেও তিনি এর একটা স্বীকৃতি পেলেন। এটা আমাদের জন্য খুবই আনন্দের বিষয়। আগামী দিনে তার কাজের মাধ্যমে সৈয়দপুরসহ পুরো নীলফামারী জেলায় আওয়ামীলীগ আরও এগিয়ে যাবে। যদিও বর্তমানে নীলফামারী-৪ আসনটি এবং বিগত দিনে নীলফামারীর সংরক্ষিত মহিলা আসনটি জাতীয় পার্টির দখলে ছিল। তারপরও এ প্রাপ্তি স্থানীয় আওয়ামীলীগের জন্য অত্যন্ত গুরুত্ববহ।

সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের আওয়ামীলীগের মনোনয়প্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও পৌর আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মোখছেদুল মোমিন বলেন, বরাবরই এ আসনটি জাতীয় পার্টির ছিল। এবার প্রধানমন্ত্রী তার কথা অনুযায়ী দলের নিবেদিত প্রাণ ও পরীক্ষিত নেত্রী রাবেয়া আলিমকে মনোনয়ন দেয়ায় আমরা কৃতজ্ঞ। আশা করি তার হাত ধরে আমরা আগামীতে আরও ভালো কাজ উপহার দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ডকে সচারুরূপে বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশকে স্বনির্ভরতা পথে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে অংশীদার হতে পরবো।

মনোনয়ন প্রাপ্ত নারী নেত্রী রাবেয়া আলিম বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা ও গণতন্ত্রের মানসকন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনার অত্যন্ত সুচিন্তিত মতামতের প্রতিফলন ঘটেছে এবারের নারী আসনের মনোনয়নের ক্ষেত্রে। যার বাস্তব প্রমান আমি নিজে। কেননা নীলফামারী জেলার এ আসনটি বরাবরই জাতীয় পার্টি ও বিএনপি’র দখলে ছিল। এক্ষেত্রে এবার আওয়ামীলীগ নেত্রী হিসেবে মনোনয়ন পাওয়ায় অত্রাঞ্চলের দলীয় ও সামগ্রিক উন্নয়নে সর্বাত্মকভাবে ভূমিকা রাখার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ পূর্বক তার সার্বিক সাফল্য, সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

উল্লেখ্য, গত ১৫ থেকে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত এই ফরম বিক্রি করে আওয়ামী লীগ। এবার সংরক্ষিত নারী আসনে দলটির দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন ১৫১০ জন। বিদ্যমান আইন অনুযায়ী, সরাসরি ভোটে জয়ী দলগুলোর আসন সংখ্যার অনুপাতে মহিলা আসন বণ্টন করা হয়। প্রতি ৬টি আসনের বিপরীতে যেকোনো দল বা জোট ১টি সংরক্ষিত আসন পেয়ে থাকে। আনুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতিতে এবার ৫০টি সংরক্ষিত আসন বণ্টন করা হবে।

আনুপাতিক প্রতিনিধিত্ব পদ্ধতিতে এবার আওয়ামী লীগ পাবে ৪৩টি। কিন্তু আওয়ামী লীগ ৪১ জনের নাম ঘোষণা করে। এছাড়া জাতীয় পার্টি ৪টি, বিএনপি ১টি, অন্যান্য দল ১টি (ওয়ার্কার্স পার্টি) ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জোটভুক্ত হয়ে ১টি সংরক্ষিত আসন পাবেন।

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে ৪ মার্চ ভোট গ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য