মহাত্মা গান্ধীর প্রতিকৃতিতে গুলি, হিন্দু মহাসভার নেত্রী গ্রেপ্তারগত সপ্তাহে মহাত্মা গান্ধীর মৃত্যুবার্ষিকীতে তার হত্যাকাণ্ডের ঘটনা পুনরাভিনয় করে তার প্রতিকৃতিতে গুলি করার দায়ে হিন্দু মহাসভার নেত্রী পুজা শাকুন পান্ডেকে গ্রেপ্তার করেছে ভারতীয় পুলিশ।

মঙ্গলবার উত্তর প্রদেশের আলিগড় থেকে পুজাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে খবর এনডিটিভির।

পাশাপাশি পুজার স্বামী অশোক পান্ডেকেও হেফাজতে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ভারতের ‘জাতির পিতা’ হিসেবে বিবেচিত গান্ধীর হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পুনরাভিনয়ে জড়িত থাকার দায়ে কট্টরপন্থী ওই গোষ্ঠীটির ১২ সদস্যের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করেছে উত্তর প্রদেশ পুলিশ।

এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ওই ভিডিওতে সঙ্গীসাথীসহ গেরুয়া শাড়ি পরিহিত পুজা পান্ডেকে মহাত্মা গান্ধী একটি প্রতিকৃতিতে একটি এয়ার পিস্তল দিয়ে গুলি করতে দেখা যায়। এরপর তাকে গান্ধীর হত্যাকারী নথুরাম গডসের ছবিতে মালা পরিয়ে দিতে দেখা যায়।

গান্ধীর মৃত্যুবার্ষিকীর দিন ৩০ জানুয়ারির এ ঘটনা ভারতজুড়ে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া ও ক্ষোভের কারণ হয়।

ওই ভিডিওতে দেখা যাওয়া লোকজনের মধ্যে তিন জনকে গত সপ্তাহেই গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ।

ওই ঘটনার বিষয়ে হিন্দু মহাসভার মহাসচিব সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, তাদের সংগঠন নতুন ঐতিহ্য শুরু করেছে এবং এটি ‘দুসেরা উৎসবে রাবণকে জ্বালানোর মতোই’ বার্ষিক উৎসব হবে।

নথুরামের প্রতি সম্মান জানাতে মহাত্মা গান্ধীর হত্যার দিনটিকে ‘শৌর্য দিবস’ হিসেবে পালন করে হিন্দু মহাসভা। মদন মোহন মালবিয়া ১৯১৫ সালে হিন্দু মহাসভা প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। কট্টরপন্থি আন্দোলনকারী নথুরাম এ সংগঠনের শুরুর দিকের অন্যতম সদস্য।

হিন্দু মহাসভা এই প্রথম নথুরামকে মহামান্বিত করার চেষ্টা করেছে এমন নয়। এর আগে ২০১৫ সালে হিন্দু মহাসভার নেতা স্বামী প্রণবানন্দ কর্নাটকের ছয়টি জেলায় নথুরামের মূর্তি স্থাপনের ঘোষণা দিয়েছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য