দিনাজপুরে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস পালিতদিনাজপুর সংবাদাতাঃ ৫ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস-২০১৯ উদ্যাপন উপলক্ষ্যে দিাজপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা সরকারি গণগ্রন্থগার, দিনাজপুর এর আয়োজনে “গ্রন্থাগারে বই পড়ি, আলোকিত মানুষ গড়ি” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে দিনাজপুরে জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস-২০১৯ উদ্যাপন করা হয়। এ দিবসটি উপলক্ষ্যে শহরে বর্ণাঢ্য র‌্যালি শহর প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালি শেষে জেলা সরকারি গণগ্রন্থগার, দিনাজপুর কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত হয়।

এ সকল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম। অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের সহকারী লাইব্রেরিয়ান মাহবুবা আক্তার সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ বজলুর রশীদ, আদর্শ মহাবিদ্যাললয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. মাসুদুল হক, প্রধান বক্তা হাবিপ্রবির লাইব্রেরিয়ান মোঃ আলাউদ্দিন খান।

অন্যান্যদের বক্তব্য রাখেন বে-সরকারি গ্রন্থাগার পক্ষ থেকে বিশিষ্ঠ লেখক বীর মুক্তিমুক্তিযোদ্ধা মোঃ মকবুল হোসেন, মকবুল হোসেন, চাউলিয়াপট্টি গ্রামীন লাইব্রেরি ও দিনাজপুর জেলা বে-সরকারি গ্রন্থাগারের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ রাহিনুর ইসলাম।

আলোচনা সভায় বক্তারা এই দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে বলেন আমরা লাইব্রেরি সম্পর্কে অনেকেই অসচেতন, তাই লাইব্রেরির অর্থ আমাদের ভালো ভাবে বুজতে হবে লাইব্রেরির অর্থ বিপুল সমাহারের বই, গ্রন্থসহ জ্ঞান আহরনের জন্য যে সকল স্থানে ব্যাপক বই পড়ার উদ্দেশ্যে রাখা হয় তাকেই লাইব্রেরি বলা হয়।

আলোচনা সখা থেকে লাইব্রেরি তৈরীর কাজে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে ব্যাক্তিগত ভাবে লাইব্রেরি তৈরী করায় “সৃজন” লাইব্রেরির সত্ত্বাধিকারী বিশিষ্ঠ লেখক বীর মুক্তিমুক্তিযোদ্ধা মোঃ মকবুল হোসেন, মকবুল হোসেনকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয় এবং বিভিন্ন প্রতিযোগীতায় অংশ গ্রহনকারি বিজয়ি শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য