গুইদোকে সমর্থন লিমা গ্রুপভুক্ত দেশগুলোরকানাডা ও লাতিন আমেরিকার ১৩টি দেশ নিয়ে গঠিত লিমা গ্রুপের অধিকাংশ সদস্য ভেনেজুয়েলার স্বঘোষিত ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ হুয়ান গুইদোর প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন।

সোমবার কানাডার অটোয়ায় এক বৈঠক শেষে ১৪ সদস্যের গোষ্ঠীটির ১১ সদস্য দেশ এক বিবৃতিতে কোনো শক্তি ব্যবহার ছাড়াই ভেনেজুয়েলায় ক্ষমতার রদবদল ঘটানোর আহ্বান জানিয়েছে, খবর বিবিসির।

ভেনেজুয়েলার বিরোধীদলীয় নেতা অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট গুইদোর প্রতি সমর্থন জানানোর জন্য দেশটির সামরিক বাহিনীর প্রতিও আহ্বান জানিয়েছে দেশগুলো।

বিবৃতিতে ১৭টি পয়েন্টে যৌথ ঘোষণা দিয়েছে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, কানাডা, চিলি, কলম্বিয়া, কোস্টা রিকা, গুয়াতেমালা, হন্ডুরাস, পানামা, প্যারাগুয়ে ও পেরু।

ঘোষণায় দেশগুলো ভেনেজুয়েলার অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে ‘হুয়ান গুইদোর প্রতি স্বীকৃতি ও সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেছে’।

এই ১১টি দেশ ‘(নিকোলাস) মাদুরো সরকারকে বিদেশে অথনৈতিক ও বাণিজ্যিক লেনদেন করা থেকে বিরত রাখতে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য’ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

তবে লিমা গ্রুপের অপর তিন সদস্য, মেক্সিকো, গায়ানা ও সেন্ট লুসিয়া, এই ঘোষণার প্রতি সমর্থন জানায়নি।

ভেনেজুয়েলার সংকটের শান্তিপূর্ণ সমাধান বের করতে সাহায্য করার লক্ষ্যে ২০১৭ সালে পেরুর রাজধানী লিমাতে এই গ্রুপটির প্রতিষ্ঠা হয়েছিল।

২০১৩ সালে উগো চাবেসের মৃত্যুর পর ভেনেজুয়েলার ক্ষমতা গ্রহণ করেন ভাইস প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো।

তার সরকারের সময় ভেনেজুয়েলার অর্থনীতিতে সংকট শুরু হয় এবং ওষুধ, খাবার ইত্যাদি জরুরি সরবরাহে ঘাটতি দেখা দেয়। এক পর্যায়ে মূল্যস্ফিতি আকাশছোঁয়া হয়ে দাঁড়ায়।

জাতিসংঘের তথ্যানুযায়ী, অর্থনৈতিক সংকটের কারণে ২০১৪ সালের পর থেকে ৩০ লাখ ভেনেজুয়েলান দেশ ত্যাগ করেছেন।

গত বছরের শেষ দিকে বিতর্কিত এক নির্বাচনে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হন মাদুরো। দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নেওয়ার পর থেকে মাদুরোবিরোধী বিক্ষোভ করছে দেশটির বিরোধীদলগুলো। এরই এক পর্যায়ে নিজেকে ভেনেজুয়েলার ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ হিসেবে ঘোষণা করেছেন বিরোধীদলীয় নেতা ও পার্লামেন্ট প্রধান গুইদো।

এ ঘোষণা দেওয়ার পরপরই মাদুরেকে অস্বীকার করে গুইদোকে স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনাসহ লাতিন আমেরিকার বেশ কয়েকটি দেশ। ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত অন্তত ১৭টি দেশও গুইদোকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

অপরদিকে রাশিয়া, চীন, তুরস্ক, ইরান প্রেসিডেন্ট মাদুরোর প্রতি সমর্থন জানিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য