Suiআরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার মুক্তিনগর ইউনিয়নের হাটভরতখালী গ্রামে স্বামীর শয়ন ঘরের বিছানা থেকে শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চামেলী আক্তার (১৯) নামে এক নববধুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত চামেলী আক্তার ওই গ্রামের সুজন মিয়ার স্ত্রী ও একই উপজেলার পদুমশহর ইউনিয়নের টেপাপদুমশহর গ্রামের মোস্তফা মিয়ার মেয়ে।

সাঘাটা থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান, গত ২৫ জানুয়ারী ওই গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সুজন মিয়ার সাথে চামেলী আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের নয়দিন পর শনিবার ভোর রাতে সুজন মিয়ার পরিবারের লোকজন ফোন করে চামেলীর বাবার বাড়ীর লোকজনকে অসুস্থতার কথা জানান।

পরে চামেলীর বাড়ির লোকজন ভোর রাতেই সুজনের বাড়িতে এসে সুজনের শয়ন কক্ষের খাটের উপর চামেলীর লাশ দেখতে পায়। পরে পুলিশকে খবর দেয়া হলে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

তিনি আরও জানান, এসময় সুজন মিয়া ও তার বাড়ির লোকজনকে সেখানে পাওয়া যায়নি। ঘটনাটি হত্যা না আত্মহত্যা তা ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর জানা যাবে।

চামেলী আক্তারের বাবা মোস্তফা মিয়ার অভিযোগ, বিয়ের নয়দিনের মাথায় আমার মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। আমি আমার মেয়ের হত্যার বিচার চাই।

এদিকে শনিবার দুপুরে সুজন মিয়ার বাড়িতে গিয়ে তাদের ঘরবাড়ী তালাবদ্ধ দেখা যায় এবং শনিবার বিকেল চারটায় এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য