থামল সৌদি দুর্নীতি বিরোধী অভিযানএক বছরেরও বেশি সময় আগে শুরু করা ব্যাপক দুর্নীতিবিরোধী অভিযান শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছে সৌদি আরব।

২০১৭ সালের শেষ দিক থেকে শুরু হওয়া এ অভিযানে দেশটির কয়েকশ প্রিন্স, ধনকুবের ও শীর্ষ ব্যবসায়ী ধরপাকড়ের শিকার হয়েছিলেন।

এ অভিযানে নগদ অর্থ ও সম্পত্তিসহ ১০ হাজার কোটি ডলারেরও বেশি সম্পদ জরিমানা হিসেবে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা, খবর বিবিসির।

তারা জানিয়েছেন, অভিযোগ স্বীকার করা ৮৭ জনের সঙ্গে ফয়সালার মাধ্যমে সমস্যা মিটানো হয়েছে, ফয়সালায় রাজি না হওয়া আট জনকে সরকারি কৌঁসুলির জিম্মায় দেওয়া হয়েছে এবং অপরাধের অভিযোগ সাব্যস্ত না হওয়ায় অপর ৫৬টি মামলার নিষ্পত্তি বাকি আছে।

২০১৭ সালের নভেম্বরে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ‍এ অভিযান শুরু করেছিলেন।

অভিযান শুরুর পর দুইশরও বেশি প্রিন্স, মন্ত্রী ও ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। এদের অনেককে রাজধানী রিয়াদের বিভিন্ন হোটেলে বন্দি করে রাখা হয়। এসব হোটেলের মধ্যে পাঁচ তারকা রিজ-কার্লটন হোটেলেও ছিল।

সৌদি আরবের অভিজাতদের বিরুদ্ধে চালানো এ শুদ্ধি অভিযানে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া হয়। এ অভিযান কিছু বিদেশি বিনিয়োগকারীকেও বিচলিত করে তুলেছিল।

কিন্তু এ অভিযান চলার মধ্যেই গত বছরের ২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলের সৌদি কনসুলেটে খ্যাতিমান সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশুগজি খুন হন। তারপর থেকে এ খুনের ঘটনা নিয়ে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ ব্যাপক চাপের মধ্যে আছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য