এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে পড়ানো ও নিবন্ধন করা নিষিদ্ধদিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ মাহাবুবুর রহমান বলেছেন, এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে পড়ানো ও নিবন্ধন করা নিষিদ্ধ। নোটারী পাবলিক এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে পড়াতে বা নিবন্ধন করতে পারেন না।

বুধবার দিনাজপুর শিশু একাডেমি মিলনায়তনে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় নিবন্ধন অধিদপ্তর এর অধিনস্থ নিকাহ্ রেজিষ্ট্রারদের প্রশিক্ষন ও সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে জেলা রেজিষ্ট্রার মোঃ মোহছেন মিয়া’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এ কথাগুলো বলেন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, এফিডেভিটের মাধ্যমে বিয়ে এবং তালাক সম্পন্ন হয় না। সে বিষয়ে নিকাহ্ রেজিষ্ট্রারদের মনে রাখতে হবে।

মুসলিম আইনে বর বা কনে এদের কোন এক পক্ষ বিবাহের প্রস্তাব দেবেন। অন্য পক্ষ তা গ্রহণ করবেন। কমপক্ষে ২জন সাক্ষী ও দেন মোহর থাকতে হবে। এগুলো’র কোন একটা অনুপস্থিত থাকলে বিবাহ সিদ্ধ হবে না।

প্রতিটি বিবাহ রেজিষ্ট্রেশন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নিকাহ্ রেজিষ্ট্রারদের প্রতি সরকারী নির্দেশ কোনভাবেই যেন বাল্য বিবাহ না হয়। সে বিষয়ে সুদৃষ্টি দিয়ে বাল্য বিবাহ রোধে সজাগ থাকতে হবে। তবেই বাল্য বিবাহ প্রতিহত করা সম্ভব হবে।

বিশেষ অতিথি হিসিবে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট জয়নুল আবেদীন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুশান্ত সরকার, শহর সমাজসেবা অফিসার মোঃ মাইনুল ইসলাম, জেলা সমবায় কর্মকর্তা মোঃ শাহজাহান আলী ও নিকাহ্ রেজিষ্ট্রার সমিতির সভাপতি কাজী আব্দুস সাত্তার।

উল্লেখ্য আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় নিবন্ধন অধিদপ্তর এর অধিনস্থ নিকাহ্ রেজিষ্ট্রারদের প্রশিক্ষন ও সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানে মুসলিম নিকাহ্ রেজিষ্ট্রার ১৪৮জন ও হিন্দু বিবাহ রেজিষ্ট্রার ১৮জন অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন খানসামা সাব রেজিষ্ট্রার অশোক কুমার বসাক ও কাহারোল সাব রেজিষ্ট্রার মোঃ শহিদুল ইসলাম।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য