দিনাজপুরে বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস-২০১৯ উদযাপনদিনাজপুর সংবাদাতাঃ ২৭জানুয়ারি রোববার বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস-২০১৯ উদযাপন উপলক্ষ্যে“বৈষম্য অপবাদ ও কুসংস্কার কুষ্ঠ রোগের প্রতি না থাকুক আর” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে সকাল সাড়ে ৯টায় দিনাজপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের আয়োজনে এবং ধানজুড়ি কুষ্ঠ কেন্দ্র, লেপ্রা বাংলাদেশ, ইউকেএইড ও আরডিআরএস-এর সহযোগিতায় বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। র‌্যালিটি সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

র‌্যালী শেষে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সকল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ২৫০ শয্যা বিশিষ্ঠ দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মোঃ আহাদ আলী।

দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুস’র সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ রায়হান সাহিদ, ধানজুড়ি কুষ্ঠ কেন্দ্রের পরিচালক ফাদার মাইকেল ডি ক্রুজ, প্রজেক্ট সুপার ভাইজার আগাপিত টুডু, লেপ্রা বাংলাদেশের মনিটরিং অফিসার পল টুডু প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা কুষ্ঠ রোগ সম্পর্কে বলেন, কুষ্ঠ জীবাণুঘটিত একটি মৃদু সংক্রামক রোগ।“মাইকো-ব্যাকটেরিয়াম লেপ্রী” নামক জীবাণু দ্বারা কুষ্ঠ হয়। এ রোগে প্রধানত মানুষের চামড়া ও প্রান্তিক ¯œায়ু আক্রান্ত হয়।

এ রোগে আক্রান্ত রোগীর চামড়া ফ্যাকাশে/লালচে অবশ যে কোন দাগের লক্ষণ, কিন্তু ধবল বা চটকের মত সাদা দাগ কুষ্ঠ নয়,এলার্জিও মত লাল চাকা চাকা ও ফোলা দাগ, চামড়ার দানা, গুটি ও কানের লতি মোটা হওয়া, দাগ ছাড়া হাত-পায়ে বোধশক্তি না থাকা, ব্যাথাহীন ঘা ও কারণ ছাড়া ফোস্কা পড়া কুষ্ঠ রোগের প্রাথমিক লক্ষণ।

আধুনিক এম,ডি,টি ঔষধ ৬মাস সেবনে অথবা ১২ মাসের চিকিৎসায় কুষ্ঠ রোগ সম্পূর্ণ ভাল হয়। বিগত ২০১৮ সালে দিনাজপুর জেলায় ২হাজার ৫শত ৩৪জন সন্দেহ ভাজন রোগীর মধ্যে সর্বমোট ২৮৬জন রোগী পাওয়া যায়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রোগ্রাম অর্গানাইজার মোঃ আব্দুর রাজ্জাক।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য