রংপুর রেঞ্জ ও আরপিএমপি’র পুলিশ সেবা সপ্তাহের উদ্বোধনজনগণের মধ্যে আইনি সচেতনতা সৃষ্টি করাসহ পুলিশি সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে রংপুরে শুরু হয়েছে পুলিশ সেবা সপ্তাহ। রোববার রংপুর রেঞ্জ পুলিশ ও মেট্রোপলিটন পুলিশের পৃথক পৃথক আয়োজনের মধ্য দিয়ে সেবামূলক এই কার্যক্রমের শুরু হয়।

সকাল এগারোটায় রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার দমদমাতে বাংলাদেশ পুলিশের রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য পুলিশ সেবা সপ্তাহের উদ্বোধন করেন। একই সময়ে রংপুর মহানগরীর কাছারি বাজার জিরো পয়েন্টে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (আরপিএমপি) কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ সাতদিনের কর্মসূচীর অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

দমদমাতে জনসচেতনতামূলক শোভাযাত্রা শেষে আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য বলেন, জনবান্ধব কার্যক্রম নিয়ে পুলিশ সারা বছর কাজ করলেও পুলিশ সেবা সপ্তাহে রংপুর রেঞ্জের আওতায় ৮টি জেলায় সড়কে প্রাণহানি রোধে মানুষকে সচেতন করা হবে। প্রতিটি জেলার সড়ক, মহাসড়ক ও আঞ্চলিক মহাসড়কে পুলিশের টিম থাকবে। তারা হেলমেট পরিহিত মোটরসাইকেল চালকদের ফুল ও চকলেট দিয়ে স্বাগত জানাবেন।

এসময় অতিরিক্ত ডিআইজি আবদুল মজিদ, জেলা পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলে ইলাহী, মিঠাপুকুর থানার ওসি জাফর আহমেদ, জেলা ট্রাফিক পুলিশ ইনচার্জ খান মো. মিজানুর ফাহমিসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে রংপুর মহানগরে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা শেষে জাহাজ কোম্পানি মোড় হতে বেতপট্টি একমুখী চলাচল কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। পথচারীদের সাথে ট্রাফিক সচেতনতামূলক মতবিনিময় এবং কমিশনারের কার্যালয়ে সেবা সপ্তাহের কেকাটা হয়। পরে পর্যায়ক্রমে ধাপ মেডিকেল মোড়ে ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এ- কলেজ সম্মুখে ফুটওভার ব্রীজ ব্যবহারে ছাত্র-ছাত্রীদেরকে সহায়তা, চেকপোস্ট চলাকালীন ট্রাফিক আইন মান্যকারীদের ফুলেল অভ্যর্থনা জানানো, নগরীর গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পোস্টার, প্লাকার্ড, লিফলেট ও ফেস্টুন ঝুলানো, ওপেন হাউস ডে, মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা এবং বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শ্রমিক সংগঠন ও ব্যবসায়ীদের সাথে সচেতনতামূলক সভার আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আরপিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ আবদুল আলীম মাহমুদ বলেন, জনগণের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করাসহ পুলিশের মধ্যে সততা, স্বচ্ছতা ও জবাদিহিতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই পুলিশ সেবা কার্যক্রম। ওপেন হাউজ ডে’র মাধ্যমে থানা পুলিশ সম্পর্কে জনগণের অভিযোগ ও পরামর্শ নেয়া হবে।

এসময় তিনি জানান, সাতদিনের কার্যক্রমে বাস টার্মিনালে গিয়ে চালকদের সাথে মতবিনিময় করা হবে। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে সামাজিক অপরাধ প্রবণতা কমাতে শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতা তৈরি করা, রাস্তা পারাপারের নিয়ম হাতেকলমে শেখানো, সাইবার ক্রাইম, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ বন্ধে নানা কর্মসূচি পালন করা হবে।

অনুষ্ঠানে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আবু সুফিয়ান, উপ-পুলিশ পরিদর্শক (হেডকোয়ার্টার্স) মহিদুল ইসলাম, উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (হেডকোয়ার্টার্স) মো. আব্দুল্লাহ আল ফারুক, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) মো. শহিদুল্লাহ্ কাওছার, সহকারি পুলিশ কমিশনার (ডিবি) মো. আলতাফ হোসেন, সহকারি পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক উত্তর-দক্ষিণ) মো. ফরহাদ ইমরুল কায়েস, রংপুর প্রেসক্লাব সভাপতি সদরুল আলম দুলু, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর মহানগর সভাপতি অধ্যক্ষ ফখরুল আনাম বেঞ্জু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য