দিনাজপুরের কাশিমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শত বছর পুর্তি উৎযাপনদিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের কাশিমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শত বর্ষপুর্তি উৎযাপন উপলক্ষ্যে তিনদিন ব্যাপি অনুষ্ঠানের শেষ দিনে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে ।

শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে সদরের কাশিমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জালাল উদ্দীনের নেতৃত্বে বিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্রছাত্রী ও প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীরা র‌্যালিতে অংশগ্রহন করেন ।

বর্ণাঢ্য র‌্যালিটি বিদ্যালয় মাঠ থেকে বের হয়ে কাশিমপুর গ্রামের প্রায় ৫ কিলোমিটার বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে দিনটিকে স্মারনীয় করতে প্রাক্তন ছাত্ররা র‌্যালিতে অংশ গ্রহন করেন । পরে কাশিমপুর গ্রাম প্রদক্ষিন শেষে পুনরায় বিদ্যালয়ে গিয়ে শেষ হয় ।
বিকালে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় ।

কাশিপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনীর ছাত্র মেহেদী হাসান মুন্না জানায় , আমাদের বিদ্যালয়টি ১৯১৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল । আজ শত পুর্তিবর্ষ উৎযাপন করা হচ্ছে । আজ আমি পঞ্চম শেন্রীর ছাত্র । একদিন আমি অনেক বড় হব তবে দিনটি আমার নিকট চির স্মারনীয় হয়ে থাকবে । বিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা আমাদেরকে পড়াশুনার পাশাপাশি আর্দশ শিক্ষা দিয়ে থাকেন ।

কাশিমপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ডাঃ সারওয়ার কবির বলেন , আমি যে বিদ্যালয়ে বাবার হাত ধরে প্রথম এসেছিলাম আজ সেই বিদ্যালয়েই শত বছর পৃর্তি উৎযাপন র‌্যালিতে অংশ গ্রহন করতে পেরে অনেক আনন্দ লাগছে । বিদ্যালয়ের অনেক স্মৃতি মনে পড়ছে । আমি এই বিদ্যালয় থেকে পড়াশুনা করে একজন চিকিৎসক হয়েছি । মানুষকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করছি । উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করার জন্য বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আমাকে পড়তে হয়েছে কিন্তু আমার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতি আলাদা টান থাকে । তাই আজ অনেক তৃপ্তি পাচ্ছি ।

বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ফারুক হোসেন জানান দিনাজপুর সদরের ৪৩ নং কাশিমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় শত বছর উৎযাপন করা হচ্ছে । নতুন প্রজম্মের শিক্ষার্থীরা যেন আগামী দিনে এই বিদ্যালয়টিকে এগিয়ে নিয়ে যায় । বিদ্যালয়টিকে যেন সরকার ও এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে ডিজিটাল বিদ্যালয় হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করে ।

বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক জালাল উদ্দীন বলেন , এই বিদ্যালয়টি ১৯১৯ সালে এই কাশিপুর গ্রামের হাজী খাজির উদ্দীন নিজ উদ্যোগে গ্রামের কিছু শিক্ষানুরাগি মানুষকে সাথে নিয়ে নিজের ৩০শতক জমিতে এই প্রাথমিক বিদ্যালয়টিকে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন । তার সেই দিনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি আজ শত বছরে প্রদারর্পন করল ।

তার নিজ হাতে তৈরী করা কাশিমপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়টি বঙ্গবন্ধু ১৯৭৩ সালে সারা দেশের সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাথে জাতীয়করন করেন । বর্তমানে ৬ জন শিক্ষক একজন দপ্তারী কাম নৈশপ্রবহী , ও ২শত ৫০ জন ছাত্রছাত্রী নিয়ে বিদ্যালয়টি পরিচালিত হচ্ছে ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য