সেতাবগঞ্জ ঐতিহাসিক বড়মাঠে বোচাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানবোচাগঞ্জঃ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেছেন, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের পূর্বে আমি বিভিন্ন নির্বাচনী জনসভায় বলেছি আওয়ামীলীগ পূনরায় ক্ষমতায় গেলে কি করা হবে সেই কথা আমি আর পূনরা বৃত্তি করতে চাইনা। আমি আপনাদের ভোটে ৩য়বার এমপি নির্বাচিত হয়ে সরকার পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছি।

এজন্য আমি আপনাদের কাছে ঋনি। আপনাদের ঋন শোধ করার ক্ষমতা আমার নেই। আমার দীর্ঘ পথ চলায় আমি স্কুল, থানা, জেলা ও কেন্দ্রীয় রাজনীতি করেছি কিন্তু কখনও অন্যায়ের সাথে আপোষ করিনি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি বাংলার মানুষের অকুণ্ঠ আস্থা ছিল বলেই ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে ৩০ লক্ষ মানুষ স্বাধীনতা অর্জনের জন্য শহীদ হয়েছে। বঙ্গবন্ধু সেই শহীদদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের অঙ্গিকার নিয়ে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব নেয়ার সাড়ে ৩বছরের মাথায় স্বাধীনতা বিরোধিরা তাকে স্ব-পরিবারে হত্যা করে বাংলাদেশকে পিছিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছে।

গত ১০ বছরে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার মাধ্যমে বাংলাদেশ ঘুড়ে দাড়িয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাংলার মানুষ মাথা উচঁ করে দাড়াবে এদেশ সোনার বাংলায় রুপান্তরের মাধ্যমে ৩০লক্ষ শহীদদের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে।

আজ বৃহস্পতিবার সেতাবগঞ্জ ঐতিহাসিক বড়মাঠে বোচাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু সৈয়দ হোসেন এর সভাপতিত্বে আয়োজিত বিশাল গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছে আমি যেন সেই দায়িত্ব সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করতে পারি এজন্য আপনারা আমাকে সাহস জোগাবেন এবং আমার জন্য দোওয়া করবেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে মন্ত্রী আবেগ আপ্লুত হয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারন করতে গিয়ে আমার পিতা মরহুম আব্দুর রৌফ চৌধুরী বারবার নির্যাতিত হয়েছেন কিন্তু বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশ্নে কখনও আপোষ করেনি যে সকল নেতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করতে গিয়ে প্রয়াত হয়েছেন তিনি তাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানান।

আলোচনা সভার পূর্বে দলীয় নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়েছেন প্রতিমন্ত্রী। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।

বিরলে ও বোচাগঞ্জ নৌপরিবহণ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি কে গণ সংবর্ধনাবিরলঃ বিরল সরকারি পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাননীয় নৌপরিবহণ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি কে উপজেলা আওয়ামী লীগ এর আয়োজনে গণ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত জননেতা খালিদ মাহমুদ চৌধুরী কে ফুল দিয়ে সংবর্ধনা জানান বিরল প্রেস ক্লাবের সভাপতি এম এ কুদ্দুস সরকার, সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক শামু, সাংবাদিক আতিউর রহমান, নুরে আলম সিদ্দিকী, সুবল রায়সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

বৃহষ্পতিবার বিকালে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এম আব্দুল লতিফ এর সভাপতিত্বে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রমা কান্ত রায় ও সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. রবিউল ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি’র বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আজিজুল ইমাম চৌধুরী, সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান বাবু, সহ-সভাপতি ও পৌরমেয়র আলহাজ্ব সবুজার সিদ্দিক সাগর, অধ্যাপক রিয়াজুল ইসলাম, বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম অরু, আব্দুস সবুর, মেনু রাম সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম, সৈয়দ জিল্লুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আল্লামা আজাদ ইকবাল লাবু, আজিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল হায়দার স্বপন, ফরক্কাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান তোসাদ্দেক হোসেন, ধামইর ইউপি চেয়ারম্যান মোসলেম উদ্দিন, শহরগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান মুরাদ, ভান্ডারা ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ, বিজোড়া ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন, ধর্মপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাবুল চন্দ্র সরকার, মঙ্গলপুর ইউপি চেয়ারম্যান সেরাজুল ইসলাম, রাণীপুকুর ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক আজম, পলাশবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস শুকুর, রাজারামপুর ইউপি চেয়ারম্যান মুকুল চন্দ্র রায়, উপজেলা মহিলালেিগর সভাপতি কুলসুমা বেগম, কৃষকলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মজিবর রহমান, যুবলীগের সভাপতি আব্দুল মালেক, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগের সভাপতি সারওয়ারুল ইসলাম রাসেল, যুবমহিলালীগের সভাপতি জাকিয়া সুলতানা প্রমূখ।

গণ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অংগসংগঠনসমূহ, বিরল পৌরসভা, ১২ টি ইউনিয়ন পরিষদ, বিরল প্রেস ক্লাব, মাধ্যমিক শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতি, উপজেলা ক্যামিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতি, কৃষিবীদ পরিষদ, ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদ, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি, ইমাম সমিতি, তেঘরা জনকল্যাণ সমিতি, উপজেলা দলিল লেখক সমিতি, কুলি শ্রমিক ইউনিয়ন, তেঘরা সমাজ কল্যাণ সমিতি, মৎস্যজীবি সমিতি, চালকল মলিক সমিতি, করাতকল মালিক সমিতি, বাংলাদেশ অটোবাইক শ্রমিক কল্যাণ সোসাইটিসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান, সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ফুলের তোড়া দিয়ে পৃথক পৃথক ভাবে গণসংবর্ধনা প্রদান করেন। এর আগে প্রতিমন্ত্রীকে বিরল উপজেলা পরিষদে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয় এবং উপজেলা পরিষদ হল রুমে তিনি উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি’র বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য