দিনাজপুরে নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরীকে সংবর্ধনা প্রদানদিনাজপুর সংবাদাতাঃ নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেছেন, দিনাজপুরে মানুষ আমাকে গণসংবর্ধনা প্রদানের মাধ্যমে যে সম্মান দেখিয়েছেন তার ঋণ আমার জীবনে শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও শোধ করার চেস্টা করব। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গঠিত মন্ত্রীসভা দেশের চলমান উন্নয়নে এই জেলার উন্নয়নকেও অব্যাহত করা হবে। এর থেকে কোন অবস্থাতেই জেলার মানুষ বঞ্চিত হবে না।

বুধবার বিকেল ৪টায় দিনাজপুর গোর-এ শহীদ বড়ময়দানে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দিনাজপুর-২ (বিরল-বোচাগঞ্জ) থেকে নির্বাচিত সাংসদ নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী তার বক্তব্যে একথাগুলো বলেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী এ্যাডঃ মোস্তাফিজুর রহমান এমপির সভাপতিত্বে তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারকে স্বাধীনতা বিরোধী চক্ররা হত্যার পর এ দেশে বঙ্গবন্ধুর নাম নেওয়া নিষিদ্ধ করেছিল তৎকালীন সামরিক শাসক জেনারেল জিয়া। সেই সময়েও দিনাজপুরে মানুষ বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে বিচ্ছুত হয়নি। দীর্ঘ ২১ বছর পর বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যার নেতৃত্বে ১৯৯৬ সালে গণজোয়ারে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হয়ে সরকার গঠনের পর এবার ৪ বারের মত প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি মন্ত্রীসভায় বলেছেন, জনগন আওয়ামী লীগকে ভালোবেশে ব্যাপক ভোট প্রদানে জয়যুক্ত করেছে। তাই জনগনের জন্য সবাইকে কাজ করতে হবে। দলের নামে যদি কেউ চাঁদাবাজী-সন্ত্রাসী, মাস্তানী ও উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করে তার দায়িত্ব আওয়ামী লীগ নেমে না। দুর্নীতি মুক্ত সোনার বাংলা গড়তে সকলকে এক সাথে কাজ করে যেতে হবে। জেলাকে সন্ত্রাস, মাদক ও উচ্ছৃঙ্খল মুক্ত জেলা হিসেবে কাজ করা হবে। সকল নেতাকর্মীকে তিনি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানান।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর ১ আসনের সাংসদ মনোরঞ্জনশীল গোপাল, ৬ আসনের সাংসদ শিবলী সাদিক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী ও কামরুল হুদা হেলালসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। অনুষ্টানটি পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগ, দিনাজপুর প্রেসক্লাব, চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাষ্ট্রি, দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড, অঙ্গসংগঠন, মহাজোটের শরিক দল, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক প্রতিষ্ঠান, ১৩টি উপজেলা থেকে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ, ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান, সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান, সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ফুলের তোড়া দিয়ে গণসংবর্ধনা প্রদান করেন।

এর আগে তিনি ঢাকা থেকে সড়কপথে দিনাজপুরে প্রবেশের পূর্বে সদর উপজেলার চেহেলগাজীতে মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিস্তম্ভকে বিনম্র শ্রদ্ধা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য