শিগগিরি নাও হতে পারে মারজিয়া হাশেমির মুক্তিইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের ইংরেজি ভাষার টেলিভিশন চ্যানেল প্রেস টিভির নারী সাংবাদিক মারজিয়া হাশেমিকে শিগগিরি মুক্তি দেয়া হবে না বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন তার স্বজনেরা। এরইমধ্যে মার্কিন আদালত মারজিয়াকে আটকের কথা নিশ্চিত করে বলেছে, তার জবানবন্দী নেয়া হচ্ছে এবং বিচার কাজের ক্ষেত্রে তা গুরুত্বপূর্ণ।

গত রোববার আমেরিকার মিসৌরির সেন্ট লুইস ল্যাম্বার্ট আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে এ নারী সাংবাদিককে বিনা অভিযোগে আটক করে আমেরিকার কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা এফবিআই।

মার্কিন বিচার বিভাগের অনুরোধে কলাম্বিয়ার চিফ ডিস্ট্রিক্ট জজ বেরিল অ্যালাইন হাওয়েল সাংবাদিক মারজিয়া হাশেমির বিষয়ে কিছু তথ্য প্রকাশ করার আদেশ দিয়েছেন। প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, প্রেস টিভির এ সাংবাদিককে ওয়াশিংটনের ডিস্ট্রিক্ট জজের আদালতে দুবার হাজির করা হয়েছে এবং একজন আইনজীবীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

বার্তা সংস্থা এপি বলছে, মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে শিগগিরি মারজিয়া হাশেমি মুক্তি দেয়া হতে পারে কিন্তু মারজিয়া হাশেমির বড় ছেলে হোসেইন এ সম্পর্কে এক রকমের হতাশা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, তার মায়ের সাক্ষ্যগ্রহণ কত দিন চলবে তার ঠিক নেই। সেক্ষেত্রে তার মুক্তির বিষয়টি ঝুলে যেতে পারে।

যদিও আদালতের আদেশে মারজিয়া হাশেমিকে অপরাধী সাব্যস্ত করা হয় নি কিন্তু আটকের পর তার সঙ্গে এফবিআই অপরাধীর মতোই আচরণ করেছে। মারজিয়া জানিয়েছে, তার হিজাব খুলতে বাধ্য করে এফবিআই। এছাড়া, তাকে হালাল খাবার দেয়া হয় নি এবং হাতকড়া পরিয়ে রাখা হয়েছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য