চিরিরবন্দরের সোনা রানী নকশী কাঁথায় সেরা অন্যন্যা নির্বাচিতদিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার গৃহবধু সোনা রানী (৫৬) হাতের তৈরী নকশী কাঁথায় বাংলাদেশের মধ্যে সেরা অন্যন্যা নির্বাচিত হয়েছেন।

চিরিরবন্দর উপজেলার সাইতাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম সাইতাড়া গ্রামের (বানিয়াপাড়া) ননী গোপালের স্ত্রী সোনা রানী তার মা প্রয়াত চারু বালার হাতে দীক্ষা নিয়ে প্রথমে নিজ বাড়ীতেই নকশী কাঁথার কাজ শুরু করেন।

এনজিও সংস্থা কেয়ার বাংলাদেশের গাছ লাগানো প্রকল্পের কর্মকর্তা তুষার ইসলামের কাছে সোনা রাণীর নকশী কাঁথার কাজ চোখে পড়লে তাকে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে উন্নত প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করে দেন।

পরে কেয়ার বাংলাদেশের রংপুরের বিভাগীয় কর্মকর্তা মিস্টার মিশাইলের সহযোগিতায় আমেরিকা, নিউইর্য়ক, লসএঞ্জেলস সহ বিভিন্ন স্থানে নকশী কাঁথার প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন।

সোনা রানী চলতি বছর অন্যান্যা পত্রিকা কর্তৃক প্রকাশিত বাংলাদেশের মধ্যে সেরা অন্যান্যা-২০১৯ নির্বাচিত হয়েছেন। এর আগে সোনা রানী ২০১৫ সালে কেয়ার কর্তৃক বিশেষ সন্মাননা স্মারক পুরস্কার লাভ করেন।

ব্যাক্তি জীবনে সোনা রানীর ১ মেয়ে ও ৩ ছেলে রয়েছে। সোনা রাণী তার এ কাজের ব্যাপারে তিনি স্বামী ননী গোপাল রায়ের সম্পূর্ন সহযাগিতা পেয়েছেন। তিনি জানান,আর্থিক সুবিধা পেলে নকশী কাঁথাকে একটি শিল্প হিসাবে গড়ে তোলা যাবে।

অত্রালাকার কুমারী মেয়েদের এ কাজে উদ্বুদ্ধ করে এ ধারাবাহিকতা বজায় রাখা যাবে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, একটি নকশী কাঁথা বর্তমানে দেশীয় মুল্যে ৩ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্য ৮ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়ে থাকে।

ঢাকার নিউমার্কেট, গুলিস্থানসহ বিভিন্ন মার্কেটের দোকানীরা প্রতিমাসে এ নকশী কাঁথা নিয়ে যান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য