তিস্তায় বোমা মেশিনে পাথর উত্তোলনদেশ যখন নির্বাচনী ব্যাস্তায় ডুবেছে ঠিক এ সময় সরকার দলীয় নেতা ও প্রশাসনের সংশ্লিষ্টতায় নীলফামারীর তিস্তা নদীতে অবৈধ বোমা মেশিন দিয়ে চলছে পাথর উত্তোলন।

তিস্তা নদীর বিভিন্ন স্থানে অনুমতিহীন অবৈধ বোমা মেশিন দিয়ে মাটির তলদেশ থেকে পাথর তোলায় হুমকির মুখ পড়েছে দেশের সর্ব বৃহৎ সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারেজ। সরেজমিনে দেখা যায়, নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার তিস্তা নদীর বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ বোমা মেশিন দিয়ে অবাধে পাথর উত্তোলন চলছে।

দিন-রাত সব সময় ভারী মেশিন দিয়ে পাথর তোলা হচ্ছে। মেশিন ও ট্রাক্টরের শব্দে এলাকার পরিবেশ দুঃসহ হয়ে উঠেছে। পরিবেশের জন্য মারাত্বক ঝুঁকিপূর্ণ হলেও আইন মানছেন না কেউ। বছর খানেক ধরে পাথর উত্তোলন বন্ধ থাকলেও হঠাৎ করে পাথর তোলা শুরু হলে জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা যায়, তিস্তায় অবৈধভাবে বোমা মেশিন দিয়ে পাথর উত্তোলনের বিরুদ্ধে জেলার ডিমলা উপজেলা সদরের জনৈক গোলাম মোস্তফা নামের এক ব্যাক্তি গত বছর হাইকোর্টে মামলা দায়ের করে। হাইকোর্ট মামলা আমলে নিয়ে বোমা মেশিন দিয়ে পাথর উত্তোলনে নিষেধাজ্ঞা জারি করে দেয়। উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকাবস্থায় এখন হঠাৎ করে কয়েকটি প্রভাবশালী মহল জোট বেধে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে পুনরায় তিস্তায় বোমা মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন শুরু করেছে।

যা উচ্চ আদালতের নিষেজ্ঞাধাকে অবজ্ঞা করা হচ্ছে। প্রভাবশালীদের ভয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকে জানান, প্রভাব বিস্তার করে তারা ডিমলার ইউএনও, থানার ওসিকে ম্যানেজ করে জোর করে পাথর তুলছে।

এতে জমিও ভেঙে যাচ্ছে। এলাকাবাসীর দাবী গয়াবাড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সামছুল ইসলামের দুই ছেলের নেতৃত্বে ৭টি বোমা মেশিন চলছে। গত দুই দিন ধরে ৫৬টি বোমা মেশিন চলছে। এ ব্যাপারে ডিমলা উপজেলা চেয়ারম্যান তবিবুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, খনিজ স¤পদ মন্ত্রণালয় থেকে এখানে কোন কোয়ারি দেওয়া হয়নি। অথচ ভারী মেশিন ব্যবহার করে পাথর উত্তোলন চলছে। এতে করে পরিবেশ বিপর্যয় ঘটছে, হুমকির মুখে পড়েছে তিস্তা ব্যারাজ সেচ প্রকল্প, নষ্ট হচ্ছে ফসলি জমি।

তবে মেশিন মালিকগনের দাবী, তারা বিভিন্ন সাইড ম্যানেজ করে মেশিন বসিয়ে পাথর তুলছে। এ ব্যাপারে ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিনের শেখ বোমা মেশিনে পাথর উত্তোলন বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে সাংবাদিকদের জানান। এ ব্যাপ্যারে নীলফামারীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজহারুল ইসলাম জানান বিষয়টি তার জানা নেই। তবে খোজঁ খবর নিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য