কাশ্মিরে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ জনজীবন বিপর্যস্তজম্মু ও কাশ্মিরে শৈতপ্রবাহের তীব্রতা আরো বেড়েছে। এর ফলে তাপমাত্রা হিমবায়ুর নিচে কয়েক ডিগ্রি কমে গেছে। মঙ্গলবার রাতে লেহ শহরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে মাইনাস ১৭.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এতে করে মানুষের জনজীবন প্রচণ্ডভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

এদিকে শ্রীনগরে গত ১১ বছরের মধ্যে সোমবার ছিল সবচেয়ে ঠাণ্ডা রাত। ওই সময় তাপমাত্রা হ্রাস পেয়ে হয়েছিল মাইনাস ৬.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া কাশ্মিরে ঢুকতে কাজীগুড শহরে সর্বনিম্ন ৫.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। অপরদিকে উত্তর কাশ্মিরে কুপওয়ারায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৬.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এছাড়া দক্ষিণ কাশ্মিরে বার্ষিক অমরনাথ যাত্রার জন্য বেস ক্যাম্প পাহালগামে রাতে তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কাশ্মিরের স্কি রিসোর্টে গুলমার্গ গুল্মগাঁওয়ে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

প্রচণ্ড ঠাণ্ডা ও তীব্র শৈত্যপ্রবাহের কারণে ডাল লেকসহ শ্রীনগরের অন্যান্য শহরে আবাসিক পানি সরবরাহের পাইপ ও জলাধার বরফে জমে গেছে। এছাড়া গত ৪০ দিন ধরে চলা শৈত্যপ্রবাহ ‘চিলাই-কালান’র মধ্যে রয়েছে কাশ্মির। এর ফলে তাপমাত্রা যথেষ্ট পরিমাণে কমে যাওয়ায় তুষারপাতের আশঙ্কা ক্রমেই বেড়ে যাচ্ছে। আগামী ৩১ জানুয়ারি এ শৈত্যপ্রবাহ শেষ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।-এনডিটিভি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য