দুধ খেলে কি ওজন কমেএতদিন আপনি শুনে এসেছেন যে খাদ্যতালিকা থেকে দুধ বাদ দিলে ওজন ঝটপট কমতে আরম্ভ করে, তাই না? কিন্তু ন্যাশনাল ডাইজেস্টিভ অ্যান্ড কিডনি ডিজ়িজ়েস-এর একটি সমীক্ষায় নানা গিয়েছে সম্পূর্ণ ভিন্ন তথ্য৷ গবেষকরা বলছেন, নিয়ন্ত্রিত মাত্রায় লো-ফ্যাট দুধ ও অন্যান্য দুগ্ধজাত সামগ্রী গ্রহণ করলে ওজন তো কমেই, শরীরও ভিতর থেকে সুস্থ হয়৷ ভিটামিন ডি, ক্যালশিয়ামের মতো প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণের জোগান দেয় তা, বিনিময়ে বাড়তি স্যাচুরেটেড ফ্যাট বা ক্যালোরির বোঝাও ঘাড়ে চাপে না৷

বিশেষজ্ঞ পুষ্টিবিদরা বলেন যে, দিনে তিনবার লো ফ্যাট দুধে তৈরি কোনও না কোনও খাবার খাওয়া উচিত সবার৷ দুধের প্রোটিন পেট ভরিয়ে রাখে, ফলে আপনার ঘন ঘন খিদে পাবে না, উলটোপালটা কিছু খাবার ইচ্ছেও হবে না৷ ওজন কমবে ধীরে ধীরে৷

ব্যায়াম করার পর কোনও সিন্থেটিক হেলথ ড্রিঙ্কের দ্বারস্থ না হয়ে দুধ খাওয়ার অভ্যেস গড়ে তুলুন, তাতে মাসল মাস ডেভেলপ হওয়ার পাশাপাশি শক্তিও বাড়ে৷ সেই সঙ্গে শরীরে জমা ফ্যাট তাড়াতাড়ি কমতে আরম্ভ করে৷

দুটো ব্যাপার মনে রাখবেন — এক, দুধে চিনি মিশিয়ে খাওয়া কিন্তু চলবে না, তাতে ক্যালোরি ইনটেকের মাত্রা বাড়বে৷ এক কাপ লো ফ্যাট দুধে থাকে আন্দাজ 83 ক্যালোরি, ফুল ফ্যাট দুধের ক্ষেত্রে তার পরিমাণটা বেড়ে হয় 150৷ আপনার দৈনিক ক্যালোরি ইনটেকের ধার্যমাত্রা কতটা সেই হিসেব করে তবেই ঠিক করুন কোন দুধ কতটা পরিমাণে খেলে আপনি সুস্থ থাকবেন৷ দুই, জলের কিন্তু কোনও বিকল্প নেই৷ জল না খেয়ে দুধ বা অন্য কোনও পানীয় গ্রহণ করলেই কাজের কাজ হবে না, এটা সব সময় মনে রাখতে হবে আপনাকে৷

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য