সুন্দরগঞ্জে এসএসসি পরীক্ষার্থী হত্যার এক সপ্তাহেও আসামি ধরা পড়েনিঃ সংবাদ সম্মেলন আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় এসএসসি পরীক্ষার্থী মেধাবী ছাত্র রুবেল মিয়াকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। কিন্তু এই হত্যাকাণ্ডের এক সপ্তাহেও কোনো আসামিকে গ্রেফতার করা হয়নি।

নিহত রুবেল মিয়ার স্বজনরা মঙ্গলবার গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করে হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত আসামিদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়. সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামজীবন ইউনিয়নের উত্তর বেকাটারি গ্রামের দুলু মিয়ার পুত্র রুবেল মিয়া। সে নলডাঙ্গার খামার দশলিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র ছিল। ওই বিদ্যালয় থেকে ২০১৯ সালে তার এসএসসি পরীক্ষা দেয়ার কথা ছিল।

যাতায়াতের একটি রাস্তাকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশী জাহিদুল ইসলাম, মোজাম্মেল হক, বাদশা মিয়া, আলা মিয়া, জব্বার আলী, আজাদ মিয়া, আনারুল ইসলাম, রেজাউল হক, নূর মোহাম্মদ, মোজাফফর হোসেন, রাসেল মিয়া, আফসার আলী, আলমগীর হোসেন, নাজমুল হক, আলামিন মিয়া ও হোসেন আলী দীর্ঘদিন থেকে দুলু মিয়ার সাথে বিরোধ করে আসছিল।

তারা প্রায়ই দুলু মিয়ার পরিবারের সদস্যদের মারপিট এমনকি খুন করারও হুমকি দিত। এরই জের ধরে গত ৪ ডিসেম্বর উক্ত ব্যক্তিরাসহ অজ্ঞাত ১৫/২০ জন পরিকল্পিতভাবে দুলু মিয়ার বাড়িতে ঢুকে ব্যাপক ভাংচুর করে। এতে বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে তারা দুলু মিয়া, স্ত্রী গোলেনুর বেগম এবং রুবেল মিয়াকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি মারপিট করে। এতে তারা গুরুতর আহত হয়।

তাদেরকে উদ্ধার করে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে¬ক্সে ভর্তি করা হয়। কিন্তু তাদের মধ্যে রুবেলের অবস্থার মারাত্মক অবনতি হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওইদিনই রুবেল মিয়া মারা যায়।

সংবাদ সম্মেলনে নিহত রুবেল মিয়ার অসহায় পিতা-মাতাসহ আত্মীয়-স্বজনরা কান্নায় ভেঙে পড়লে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়।

রুবেল হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত আসামিদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য জেলা ও পুলিশ প্রশাসনসহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন নিহত রুবেলের আহত পিতা দুলু মিয়া ও মা গোলেনুর বেগমসহ মামা আব্দুর রহমান, চাচা আবুল হোসেন, আশরাফুল আলম, চাচাত ভাই রমজান আলী, দুলাভাই আব্দুর রহিম মিয়া, বোন দুলালী বেগম এবং এলাকাবাসী আব্দুল জলিল, নজরুল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম, সাইদুল ইসলাম প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য