কুড়িগ্রামে ৪টি আসনে প্রতীক বরাদ্দ পেলেন প্রার্থীরাকুড়িগ্রামে সংসদীয় ৪টি আসনে ৩৬জন প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এরমধ্যে ৪জন স¦তন্ত্র প্রার্থী এবং বিভিন্ন দলের ৩২জন প্রার্থী একাদশ সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রতিকে প্রতিদ্বন্ধিতা করবেন। জেলার ৪টি আসনের মধ্যে ৩টি আসনেই কোন স্বতন্ত্র প্রার্থী নেই। কুড়িগ্রাম-৪ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ১৩জন, কুড়িগ্রাম-৩আসনে দলীয় ৮জন, কুড়িগ্রাম-২আসনে দলীয় ৭জন এবং কুড়িগ্রাম-১ আসনে ৮জন প্রার্থী রয়েছেন।

সোমবার সকালে জেলা প্রশাসক হলরুমে প্রার্থীদের উপস্থিতিতে প্রতীক বিতরণ করেন জেলা রিটার্ণিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন। এ সময় প্রার্থী এবং প্রর্থীদের প্রতিনিধির মাধ্যমে প্রতীক সংগ্রহ করেন। প্রতিক বরাদ্দের সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জিলুফা সুলতানা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেনহাজুল আলম,নির্বাচন কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম রাকিব,সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারি রিটার্ণিং কর্মকর্তা আমিন আল পারভেজ প্রমুখ।

হাইকোর্টে আপিল করে কুড়িগ্রাম-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার মোটর গাড়ী (কার) প্রতীক পেয়েছেন। এছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী ডাব প্রতিকে ইমান আলী, কুড়াল প্রতিকে মো: ইউনুছ আলী এবং সিংহ প্রতিক পান সাবেক এমপি মো: গোলাম হাবিব। দলীয় প্রতিক পেয়েছেন জাতীয় পার্টি লাঙ্গল প্রতিক মোহাম্মদ আসরাফ উদ দৌলা, বিএনপি’র ধানের শীষ প্রতিক আজিজুর রহমান, ইসলামি আন্দোলনের হাতপাখা প্রতিক আনছার উদ্দিন, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রি (বাসদ) মই প্রতিক আবুল বাশার মঞ্জু, গণতন্ত্রী পার্টি প্রতিক কবুতর আবদুস সালাম কালাম,আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতিক জাকির হোসেন, ওয়ার্কাস পার্টি কোদাল প্রতিক মহী উদ্দিন আহমেদ, গণফোরাম প্রতিক উদীয়মান সূর্য্য প্রতিক মাহফুজার রহমান, জাকের পার্টি গোলাম ফুল প্রতিক শাহ আলম।

কুড়িগ্রাম-৩ আসনে কোন স্বতন্ত্র প্রার্থী না থাকায় দলীয় ৮জন প্রার্থী প্রতিক দেয়া হয়। তারা হলেন, আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতিক অধ্যাপক এমএ মতিন, জাতীয় পার্টি লাঙ্গল প্রতিক ডা: আক্কাছ আলী সরকার, বিএনপি’র ধানের শীষ প্রতিক তাসভীর উল ইসলাম, ইসলামি আন্দোলনের প্রতিক হাতপাখা গোলাম মোস্তফা মিঞা, কমিউনিষ্ট পার্টি কাস্তে প্রতিক দেলওয়ার হোসেন, জাতীয় পার্টি জেপি বাই সাইকেল প্রতিক মনজুরুল হক, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ গামছা প্রতিক হাবিবুর রহমান,বাসদ মই প্রতিক সাইদ আখতার আমীন।

কুড়িগ্রাম-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী না থাকায় দলীয় ৭জন প্রার্থীকে প্রতিক দেয়া হয়। তারা হলেন, জাতীয় পার্টি লাঙ্গল প্রতিক পনির উদ্দিন আহমেদ, বিকল্পধারা বাংলাদেশ কুলা প্রতিক আবুল বাশার, গণফোরাম (ঐক্যফ্রন্ট) ধানের শীষ প্রতিক আমসাআ আমিন, কমিউনিষ্ট পার্টি কাস্তে প্রতিক উপেন্দ্র নাথ রায়, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) আম প্রতিক আবদুর রশিদ, ইসলামি আন্দোলন প্রতিক হাতপাখা মোকছেদুর রহমান, বাসদ মই প্রতিক মোনাব্বর হোসেন।

কুড়িগ্রাম-১ আসনেও কোন স্বতন্ত্র প্রার্থী না থাকায় শুধু দলীয় প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিক দেয়া হয়। দলীয় প্রতিক যারা পেলেন,আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতিক আছলাম হোসেন সওদাগর ,জাতীয় পার্টি লাঙ্গল প্রতিক একেএম মোস্তাফিজুর রহমান, বিএনপি’র ধানের শীষ প্রতিক সাইফুর রহমান রানা, ইসলামি আন্দোলন হাতপাখা প্রতিক আবদুর রহমান প্রধান, জাকের পার্টি গোলাপ ফুল প্রতিক আবদুল হাই, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) আম প্রতিক জাহিদুল ইসলাম, জাতীয় পার্টি জেপি বাইসাইকেল প্রতিক রশীদ আমেদ, তরিকত ফেডারেশন ফুলের মালা প্রতিক কাজী লতিফুল কবির রাসেল।

প্রতিক বরাদ্দ শেষে জেলা রিটার্ণিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক সুলতানা পারভীন প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর আহবান জানান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য