দিনাজপুরে অনুষ্ঠিত হলো উত্তরবঙ্গ উদ্যোক্তা সম্মাননা ও মতবিনিময় সভাদিনাজপুর সংবাদাতাঃ “নতুন উদ্যোগ ও নতুন উদ্যোক্তাদের খোঁজে” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে দিনাজপুরে এই প্রথম অনুষ্ঠিত হলো প্যারট ইন মোশন স্টুডিও’র আয়োজনে নিউ বালুবাড়ী হাউজিং কার্যালয়ের হলরুমে উত্তরবঙ্গের উদ্যোক্তা সম্মাননা প্রদান ও তাদের সাফল্য গাঁথা গল্প নিয়ে মত বিনিময় সভা।

আয়োজকের পক্ষে গাওশে আলেকজান্ডার শুরুতে বলেন, ব্যবসায় সাফল্য গাঁথা উদ্যোক্তাদের সম্মাননা প্রদান করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। একে অপরের সাথে মত বিনিময় করে জানবে কিভাবে একজন উদ্যোক্ত প্রতিষ্ঠা লাভ করেছেন এবং আগামী ৫ বছরে তার গড়া প্রতিষ্ঠানটিকে তিনি কিভাবে দেখতে চান। সে স্বপ্নের বর্ণনা করবেন।

সম্মাননা গ্রহণ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাবিপ্রবি’র প্রফেসর মোঃ কুতুবউদ্দিন। সম্মাননা স্মারক পেয়ে উদ্যোক্তাদের মধ্যে অনুভুক্তি ব্যক্তি করে বক্তব্য রাখেন কিউভিসি কোম্পানীর ম্যানেজিং ডিরেক্টর এটিএম সামসুজ্জামান (জামান), চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র পরিচালক আজিজুল ইকবাল চৌধুরী, হাবিপ্রবি’র ড. মরুফ আহমেদ, তাজ ফ্যাশানের স্বত্ত্বাধিকারী মোঃ আব্দুল মজিদ, মাসুম বেকারীর পরিচালক শামীম শেখ, পলিটেকনিক্যাল কলেজের (বেসরকারি) প্রতিষ্ঠাতা তারেক ইবনে নাসিম, জয়েলার্স ও বুটিকস প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী রেজোয়ানা খানম, জলসিরি’র প্রোপ্রাইটর আজিজুল হাকিম সৌরভ, আনোয়ারা অটো রাইস মিলের স্বত্ত্বাধিকারী মোঃ আনোয়ার হোসেন, অন্বেষা চানাচুর কোম্পানীর প্রোপ্রাইটর মনোয়ার হোসেন সরকার, ফিজিও থেরাপী ডাঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, সমাজ বা দেশের অর্থনৈতিক মুক্তির ক্ষেত্রে একজন উধ্যোক্তার গুরুত্ব অপরিসিম। আমাদের সমাজে আরো বেশী করে উদ্যোক্তা সৃষ্টির প্রয়োজন আছে।

উদ্যোক্তাদের উন্নয়ন ঘটানোর মধ্য দিয়ে সমাজের পরিবর্তন ঘটাতে হবে।

সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়া কোন শিল্প কারখানা গড়ে উঠতে পারে না। তবে একজন উদ্যোক্তার থাকতে হবে সততা, স্বচ্ছতা এবং নিজস্ব কৌশল ও তাদের উৎপাদিত পণ্য বাজারজাত করার সৎ ইচ্ছ। দিনাজপুরের উৎপাদিত সুগন্ধি চাল বড়বড় কোম্পানীরা ক্রয় করে তাদের প্যাকেটে বিক্রি করে সুনাম অর্জন করছে।

আমরা আগামী ৫ বৎসরের মধ্যে আমরাও দিনাজপুরের চাল আমাদের নিজস্ব প্যাকেটে সারা বিশ্বে বাজারজাত করতে পারব। সমাপনী বক্তব্য রাখেন সম্মানীত অতিথি সোনালী ব্যাংক কর্পোরেট শাখার অফিসার সুশান্ত চক্রবর্তী। অনুষ্ঠানে সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন সঞ্জয় কুমার দাস রনো।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য