লালমনিরহাটের তিন আসনে হেভিওয়েট ৫ প্রার্থীর যত সম্পদআজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধি: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে নির্বাচন কমিশনে দেওয়া প্রার্থীদের হলফনামা নিয়ে জনমনে কৌতূহল ততই বাড়ছে। এতে পিছিয়ে নেই লালমনিরহাটের ভোটাররা।

লালমনিরহাটে স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ বিভিন্ন দলের ২৫জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। কিন্তু যাচাই-বাছাইয়ে ৫ প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হলে তিন আসনে ২০জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশ গ্রহন করছেন। তাদের মধ্যে ৫জন হেভিওয়েট প্রার্থী রয়েছেন। যাদের সম্পদের হিসাব জানার আগ্রহ রয়েছে সাধারন ভোটারদের।

রোববার (২ডিসেম্বর) হলফনামা মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ওই ৫জন হেভিওয়েট প্রার্থী মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

সংসদীয় আসন ১৮ লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনে বিএনপির প্রার্থী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু’র হলফনামায় তিনি উল্লেখ করেছেন তার শিক্ষাগত যোগ্যতা এমএ পাশ। তার বিরুদ্ধে ১৮টি রাজনৈতিক মামলা রয়েছে। দুইটি মামলায় তিনি অব্যাহতি পেয়েছেন। পেশা শিক্ষকতা, চিকিৎসা, আইন পরামর্শক ও ব্যবসা।

হলফনামায় গৃহ সম্পত্তি, মৎস্য চাষ ও পারিতোষিক ভাতাকে আয় হিসেবে দেখিয়েছেন তিনি। এসব খাত থেকে বছরে আয় ১ কোটি ৩৭ লাখ ৫ হাজার ৪৯১ টাকা। অস্থাবর সম্পদ নগদ ৭৫ লাখ ৭৪ হাজার ৯১০ টাকা মুল্যের কয়েকটি গাড়ি, ১০ ভরি স্বর্ণ। স্থাবর সম্পদ পৈতৃক সূত্রে পাওয়া ২০ দশমিক ৭৪ একর কৃষি জমি। রংপুরে দশমিক ৩২ একর ও লালমনিরহাটে দশমিক ৬৫ একর অকৃষি জমি এবং ঢাকার বনানীতে ৫ কাঠার একটি প্লট রয়েছে যার মুল্য ৫৪ লাখ ৬৬ হাজার ১৫৪ টাকা।

সংসদীয় আসন ১৮ লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনের মহাজোট থেকে মনোনীত জাতীয় পার্টির (এরশাদ) প্রার্থী সাবেক মন্ত্রী গোলাম মোহাম্মদ কাদের’র হলফনামায় তার শিক্ষাগত যোগ্যতা বিএসসি ইঞ্জিনয়ার (মেকানিক্যাল), রাজনীতিবিদ (কো-চেয়ারম্যান ও প্রেসিডিয়াম সদস্য, জাতীয় পার্টি) কে পেশা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

তার বার্ষিক আয় ৭৩ লাখ ৯৪ হাজার ৪০৮ টাকা। স্থাবর ১১.৫০ শতাংশ জমিসহ সেমি পাকা বাড়ি যার মুল্য ৬ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। ঢাকা উত্তরার ৭ নং সেক্টরে চার তলা বিশিষ্ট একটি বাড়ি আছে যার মুল্য দেয়া হয়েছে ৬ লাখ ৬১ হাজার ৪১১ টাকা। তার কোন ব্যাংক ঋণ নেই।

সংসদীয় আসন ১৭ লালমনিরহাট-২ (কালীগঞ্জ-আদিতমারী) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সমাজ কল্যান প্রতিমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের হলফনামায় তার বার্ষিক আয় দেখানো হয়েছে ৩৪ লাখ ৪৫ হাজার ৮৫৫ টাকা। তার কোন ব্যাংক ঋণ নেই। শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক (পাশ) বি,কম, পেশা ব্যবসা, তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই। স্থাবর সম্পদ পৈতৃক সূত্রে পাওয়া ২৫ বিঘা কৃষি জমি, দশমিক ৭২ একর অকৃষি জমির মুল্য ৭ লাখ টাকা ও একটি দ্বিতল বাড়ি রয়েছে যার মুল্য ৩০ লাখ টাকা। মৎস্য খামার ৩৫ বিঘা।

সংসদীয় আসন ১৭ লালমনিরহাট-২ (কালীগঞ্জ-আদিতমারী) আসনের জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) প্রার্থী রোকন উদ্দিন বাবুলের হলফনামায় গৃহ সম্পত্তি, মৎস্য চাষ ও পারিতোষিক ভাতাকে আয় হিসেবে দেখিয়েছেন তিনি। এসব খাত থেকে বছরে তার আয় ২৭ লাখ ৫০ হাজার ৮৬০ টাকা। অস্থাবর সম্পদ নগদ ৫১ লাখ ৪৫ হাজার ২৮০ টাকা, ৮৫ হাজার টাকা মূল্যের একটি গাড়ি, ২৫ তোলা স্বর্ণ। স্থাবর সম্পদ পৈতৃক সূত্রে পাওয়া ৮ দশমিক ৫৮ একর কৃষি জমি, দশমিক ৭২ একর অকৃষি জমি ও একটি বাড়ি রয়েছে যার মুল্য ২৮ লাখ টাকা। তার হলফনামায় দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি পাশ, পেশা-ব্যবসা দেয়া আছে।

সংসদীয় আসন ১৬ লালমনিরহাট-১ (পাটগ্রাম-হাতিবান্ধা) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেনের হলফনামায় দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শিক্ষাগত যোগ্যতা বিএসসি, পেশা-ব্যবসা। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই। বার্ষিক আয় ২৫ লাখ ৭৩ হাজার ৬০৪ টাকা। ব্যবসা থেকে আয় ১০ লাখ টাকা, চাকুরী বেতন-ভাতা ৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য