ন্যাটোকে আজোভ সাগরে রণতরী পাঠানোর আহ্বান ইউক্রেন প্রেসিডেন্টেরআজোভ সাগরে ন্যাটোর যুুদ্ধজাহাজ মোতায়েনের আহ্বান জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্ক। জার্মান সংবাদমাধ্যম বিল্ডকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, আমি আশা করি তারা ইউক্রেন সহায়তা করবে ও নিরাপত্তা দিবে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

রবিবার রাশিয়া ইউক্রেনের বারডিযানস্ক এবং নিকোপল যুদ্ধজাহাজ এবং দি ইয়ানা কাপা জাহাজ জব্দ করেছে। ইউক্রেনের দাবি, রাশিয়া জাহাজের পথ আটকাতে চেষ্টা করে, যদিও এরপর নৌযানগুলো কের্চ স্ট্রেইটের উদ্দেশ্যে চলছিল কিন্তু ট্যাংকার দ্বারা বাধাপ্রাপ্ত হয়। এছাড়া রুশ বাহিনীর গুলিতে জাহাজে থাকা ৬ সেনা আহত হয়েছে বলেও জানিয়েছে ইউক্রেন।

আর রাশিয়ার অভিযোগ, নৌযানগুলা অবৈধভাবে তাদের জলসীমায় প্রবেশ করেছিল এবং নিরাপত্তার কারণে ওই পথে চলাচল সাময়িকভাবে স্থগিত থাকবে। এ ঘটনার পর রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের পাশাপাশি ইউরোপেরও উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। আর রাশিয়ার এমন আচরণের পর দেশের সশস্ত্র বাহিনীকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রেখেছে ইউক্রেন। ২৮ নভেম্বর থেকে ৩০ দিনের জন্য সামরিক শাসনও জারি করা হয়েছে দেশটিতে।

এই ঘটনায় ন্যাটো ইউক্রেনের প্রতি পূর্ণ সমর্থনের আশ্বাস দিয়েছে।

এদিকে বুধবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন অভিযোগ করেছেন যে তার জনপ্রিয়তা হ্রাসেই পোরোশেঙ্কো উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বক্তব্য দিচ্ছেন।

পোরোশেঙ্কোর দাবি, পুতিন আজোভ সাগর দখলে রাখতে চান। তিনি বলেন, জার্মানি আমাদের অত্যন্ত ভালো বন্ধু। আমরা আশা করি ন্যাটো আমাদের সহায়তায় আজোভ সাগরে তাদের জাহাজ পাঠাবে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমরা রাশিয়ার আগ্রাসী নীতি মেনে নিতে পারি না। প্রথম ক্রিমিয়া, তারপর পূর্ব ইউক্রেন আর এখন আজোভ সাগর। জার্মানিরও প্রশ্ন করা উচিত পুতিনকে না থামালে পরে কি পরিণতি আসবে?

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য