12 12 18

বুধবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

Home - জেনে রাখুন - গ্যাস-অম্বল, বুক জ্বালার সমস্যার সহজ সমাধান

গ্যাস-অম্বল, বুক জ্বালার সমস্যার সহজ সমাধান

গ্যাস-অম্বল, বুক জ্বালানিয়ম মেনে খাওয়াদাওয়া করছেন, অফিসে বয়ে নিয়ে যাচ্ছেন টিফিনের বাক্স, কিন্তু তা-ও পেট ফাঁপছে, গ্যাস-অম্বল-বুক জ্বালার সমস্যা কিছুতেই আপনার পিছু ছাড়ছে না? একবার আপনার খাদ্যতালিকায় চোখ বুলিয়ে দেখুন, সমস্যার সমাধান খুঁজে পেয়ে যাবেন নিজেই!

App DinajpurNews Gif

দূরে থাকুন ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রকোলি, ক্যাপসিকামের মতো সবজি থেকে: উল্লিখিত প্রত্যেকটি সবজি হজমের সময়েই পেট ফাঁপে সবার৷ এই সমস্যা এড়াতে চাইলে এড়িয়ে চলুন সবজিগুলিকে৷

আপেল: এতদিন জানতেন, অ্যান অ্যাপল আ ডে, কিপস ডক্টরস অ্যাওয়ে৷ এবার জেনে নিন যে আপেলে উপস্থিত ফাইবার জল শোষণ করে৷ আর তার পর যখন সেটা ভাঙে, তখন তৈরি হয় গ্যাস৷

বিনস: বিনসে উপস্থিত অলিগোস্যাকারাইড হজম করতে পারে না আমাদের শরীর, সেটা পেটের ভিতর গ্যাসের জন্ম দেয়৷

ময়দা: ময়দা রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা বাড়ায়, বাড়ায় ফ্যাটের স্টোরেজ৷ সেই সঙ্গে তা গ্যাসও তৈরি করে পেটে৷

খাবার আর কার্বনেটেড পানীয়: প্রচুর চিনি মেশানো থাকে যে কোনও কার্বনেটেড পানীয়ে৷ আপনার রোজের খাবারের সঙ্গে যখন সেটা পান করছেন, তখন হজমে ব্যাঘাত ঘটবেই৷ আর খাবার হজম হতে যত দেরি হবে, পেটে গ্যাসের পরিমাণ তত বাড়বে৷

দই আর টক ফল: কমলালেবু বা কিউয়ির মতো যে সব ফলে টক রস আছে সেগুলি থেকে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি পাওয়া যায়, দইয়ের প্রোবায়োটিক ও ল্যাকটিক অ্যাসিডও শরীরের জন্য খুব ভালো৷ কিন্তু দুটোকে একসঙ্গে মেশাবেন না, তাতে হজম হতে অনেক দেরি হবে৷ একান্তই যদি কখনও দই আর এই ধরনের ফল একসঙ্গে খাওয়ার প্ল্যান করে থাকেন, তা হলে খেয়াল রাখবেন দই যেন ঘরের তাপমাত্রায় থাকে৷ সেই সঙ্গে যোগ করে নিন সামান্য মধু আর এক চিমটে দারচিনির গুঁড়ো, তাতে উষ্ণতা বাড়বে৷

দুধ বা ছানা আর পালং শাক: পালংয়ের সঙ্গে যে কোনও ডেয়ারি প্রডাক্ট খেলেই দুধের সমস্ত গুণ নষ্ট হয়ে যায়৷ বিশেষ করে পালংয়ের অক্সালিক অ্যাসিড দুধের ক্যালশিয়াম শোষণে বাধা সৃষ্টি করে৷ তাই পালং পনির নয়, মটর পনির খান৷ পালংয়ের সঙ্গে খেতে পারেন কোনও ডাল বা মশরুম৷

দুধ আর ডাল: দইয়ের সঙ্গে ডাল খেতে পারেন, কিন্তু দুধের সঙ্গে নৈব নৈব চ৷ দুধের নিজস্ব হজমের প্রক্রিয়া আছে৷ তার পাচন পাকস্থলীতে হয় না, ডুওডেনামে হয়৷ ডালের অলিগোস্যাকারাইড হজমেও অনেকটা সময় লাগে৷ তাই দুটো একসঙ্গে খেলেই হজমে বিঘ্ন ঘটার আশঙ্কা আছে৷

মাছ আর দুধ: ছেলেবেলায় আমরা সবাই শুনেছি যে মাছ আর দুধ একসঙ্গে খেলে নাকি ত্বকের রোগ হয়৷ আসলে দুটোই প্রোটিন, একবারে একটিই আমাদের শরীরের জন্য যথেষ্ট৷ দুটো একসঙ্গে খেলেই হজমের গোলমাল হতে পারে৷

খাবার ভালো করে চিবিয়ে খান: ভালো করে চিবিয়ে না খেলে কিন্তু মুখের লালারসের সঙ্গে মিশবে না খাবার, তাতে হজমের প্রক্রিয়া দীর্ঘায়িত হবে৷ খেতে খেতে কথা বলবেন না৷ আর এত কিছু মেনেও যদি পেট ফাঁপার সমস্যা না কমে, তা হলে অবশ্যই একবার ফুড অ্যালার্জির টেস্ট করার কথা ভাবতে হবে৷ জেনে নিন দুধ, গ্লুটেন বা অন্য কোনও অ্যালার্জির কারণেই আপনার হজমের সমস্যা হচ্ছে কি না৷

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য