ঘরের কাঠের আসবাবের যত্ন নেবেন কীভাবেকাঠের আসবাব ঘরে রাখতে কার না ভালো লাগে? টেবিল, চেয়ার, শেলফ, আলমারি, পালঙ্ক বা ছবির ফ্রেমের আভিজাত্যই আলাদা৷ কাঠের আসবাবের যত্নের জন্য নিয়মিত শুকনো কাপড় দিয়ে তা ঘষে ঘষে মোছা উচিত৷ কিন্তু তাতেও শেষরক্ষা হবে না, কারণ ধুলো, তেল-ময়লা চেপে বসবেই আসবাবের উপরে, এবং সেটা সরাতে গেলে খুব ভালো করে ডিপ ক্লিনিং করাতে হবে৷

রোজের যত্নের জন্য কী করবেন:
কাঠের আসবাবের উপর ধুলো জমতে দেবেন না৷ তা নিয়মিত শুকনো কাপড়ে মুছে ফেলা দরকার৷ সপ্তাহে একদিন খুব হালকা কোনও লিকুইড ডিটারজেন্ট আর হালকা গরম জলের একটা মিশ্রণ তৈরি করুন৷ একটা পাতলা ও পরিষ্কার তোয়ালে এই মিশ্রণে ডুবিয়ে ভালো করে নিংড়ে জলটা ফেলে দিন৷ তার পর তা দিয়ে আলতো হাতে আসবাবটা ঘষে ঘষে মুছে নিতে হবে৷ মনে রাখবেন, এই কাপড়টি আর্দ্র হওয়া প্রয়োজনীয়, ভেজা হওয়ার দরকার নেই৷ এর পর অন্য একটা শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে শুষে নিন সমস্ত ভিজেভাব৷ জলটা যেন আসবাবে বসার সুযোগ না পায়৷

অ্যান্টিক আসবাবের দেখভাল:
অ্যান্টিক আসবাবের পালিশ চটে গেলে দেখতে বড়ো বাজে লাগে, কিন্তু তার পুরোনো ঔজ্জ্বল্য ফিরিয়ে আনা মোটেই তেমন কঠিন কাজ নয়৷ এক মগ জল গরম করে নিন, তার মধ্যে কড়া ফ্লেভারের টি ব্যাগ ডুবিয়ে রাখুন৷ চা ঘরের তাপমাত্রায় এসে গেলে টি ব্যাগ তুলে ফেলে দিন৷ এবার এর মধ্যে নরম, পরিষ্কার একটি কাপড় ডুবিয়ে তুলে নিয়ে নিংড়ে বের করে নিন সমস্ত জলীয় ভাব৷ তার পর সেটা দিয়ে মুছুন আপনার পুরোনো আসবাবটি৷ তার চমক দেখে আপনি নিজেই অবাক হয়ে যাবেন!

জলের দাগ তোলার উপায়:
অসাবধানে চায়ের কাপ বা সফট ড্রিঙ্কের বোতল উলটে গিয়েছে কাঠের টেবিলের উপর? দাগের জায়গাটায় টুথপেস্ট লাগান (জেল হলে কিন্তু চলবে না, পেস্ট চাই)৷ তার পর একটা নরম কাপড় দিয়ে ঘষে ঘষে দাগটা তুলে ফেলুন৷ টুথপেস্টটা মোছার জন্য পরে আবার একটা আর্দ্র রুমাল বা তোয়ালে ব্যবহার করতে হবে৷

কালি বা অন্য কোনও কঠিন দাগ তোলার পদ্ধতি:
এক টেবিলচামচ বেকিং সোডা আর জল দিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরি করুন৷ দাগের উপর এটা লাগিয়ে নিন, তার পর নরম কাপড়ে মুছে দাগটা তুলে ফেলুন৷ এইবার একটা আর্দ্র কাপড় এর উপর বুলিয়ে নিন, তার পর একটা শুকনো কাপড়ে মুছে ভেজাভাবটা শুষে নেবেন৷

বাড়িতেই তৈরি করে নিন পালিশ:
১ কাপ আলিভ অয়েল আর ¼ কাপ সাদা ভিনিগার একসঙ্গে মিশিয়ে নিন৷ আসবাব পরিষ্কার করে নেওয়ার পর এই মিশ্রণ একটা নরম কাপড়ে ঢেলে ভালো করে মুছে নিন৷ আপনার ফার্নিচার ঝলমলে থাকবে বহুদিন৷ -ফেমিনা

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য