12 15 18

শনিবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ১লা পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৭ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী

Home - রংপুর বিভাগ - রাজারহাট-খেদাবাগ রাস্তার কার্পেটিং উঠে গিয়ে খানাখন্দ

রাজারহাট-খেদাবাগ রাস্তার কার্পেটিং উঠে গিয়ে খানাখন্দ

রাজারহাট-খেদাবাগ রাস্তার কার্পেটিং উঠে গিয়ে খানাখন্দকুড়িগ্রামের রাজারহাট-খেদাবাগ পাকা রাস্তার কার্পের্টিং উঠে গিয়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে চলাচলে অযোগ্য হয়ে পড়েছে রাস্তাটি।

App DinajpurNews Gif

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রাজারহাট হতে খেদাবাগ এলজিইডির রাস্তাটির দুরত্ব সাড়ে ৭ কিলোমিটার। গত ৩বছর আগে ওই পাকা রাস্তাটির উপর প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যয়ে পিচ ঢালাই করে সংষ্কার করা হয়।

কাজের মান নি¤œমানের হওয়ায় কয়েকদিনের মধ্যেই কার্পেটিং উঠে যেতে থাকে এবং বেশ কয়েকটি জায়গায় ফাটল ধরে। এটি এলাকাবাসীর দৃষ্টি গোচরে এলে সেগুলো পূনঃরায় সংষ্কার করে দেয়া হয় বলে এলাকাবাসীরা অভিযোগ করেন।

সংষ্কারের পর থেকেই ওই পাকা রাস্তা দিয়ে ভারী মালবাহী যানবাহন চলাচল করলে কার্পেট উঠে যেতে শুরু করে। ধীরে ধীরে ওই রাস্তার বেশীর ভাগ জায়গায় বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়।

এ ছাড়া প্রায় অধিকাংশ রাস্তারই কার্পেটিং (পিচ ঢালাই) উঠে গিয়ে নষ্ট হয়ে গেছে। বর্তমানে ওই রাস্তা দিয়ে একটি বাইসাইকেলও যাতায়াত করতে সাইকেল আরোহীর হিসসিম খেতে হয়।

ওই রাস্তাটি একটি ব্যস্ততম রাস্তা। ভাঙ্গা রাস্তা দিয়ে যানবাহন বেশী চলাফেরা করায় স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রী, অটোরিক্্রা, বাইসাইকেল ও মটর সাইকেল হরহামেষায় দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।

মাসে কমপক্ষে ৫/৬বার দূূর্ঘটনা ঘটে বলে রাস্তার দু’ধারের মানুষজন জানান। চিলমারী, উলিপুর ও রাজারহাট উপজেলার কয়েক লাখ মানুষজন ওই রাস্তা দিয়ে ব্যবসা-বানিজ্য ও চলাফেরা করে।

এ ছাড়া রংপুর হতে কুড়িগ্রাম আরকে রোড়ে বড় ধরনের দূর্ঘটনা হলে এ রাস্তাটি দিয়ে ছোট বড় নাইট-ডে কোচসহ ভারী যানবাহন চলাচল করে।

সামান্য বৃষ্টি হলে কিংবা প্রচন্ড কুয়াশায় ওই রাস্তা দিয়ে চলাচল করলে দূর্ঘটনার শিকার হবে যানবাহন ও পথচারীরা। তাই রাস্তাটি পূণঃসংষ্কারের দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে রাজারহাট উপজেলা প্রকৌশলী কাজী মোঃ রেজাউল হাফিজ সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রাস্তাটির প্রসস্থ্য করতে বাজেট চেয়ে মন্ত্রনালয়ে চিঠি দেয়া হয়েছে। আগামি অর্থবছর জুনে বাজেট এলেই কাজ শুরু করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য