আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে ক্ষমতাশীন আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি থেকে সীমান্তবর্তি জেলা লালমনিরহাটের তিনটি সংসদীয় আসনে নিজ দলীয় মনোনয়ন ক্রয় করেছেন ২৫জন প্রার্থী।

জানা গেছে, লালমনিরহাটের ৩টি সংসদীয় আসন নিজেদের কজ্বায় নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে সকল রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা। এরই মাঝে নিজ নিজ দলীয় মনোনয়ন নিতে সকল নেতা রাজধানী ঢাকায় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের পিছু নিয়েছেন। সকল রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অবস্থান করায় নেতা শুন্য হয়ে পড়েছে লালমনিরহাট।

ক্ষমতাশীন দল আওয়ামীলীগের নৌকার মাঝি হতে ৩টি আসনেই একাধিক প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন কিনেছেন। বিএনপি’তে ইউপি চেয়ারম্যান থেকে সাবেক সংসদ পর্যন্ত একাধিক ব্যক্তি একই আসনের মনোনয়ন কিনেছেন। মনোনয়নে চুড়ান্ত টিকিট পেতে শেষ মুহুর্তে মরিয়া হয়ে চেষ্টা করছেন তারা। তাই সকলের অবস্থান কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে। স্থানীয় নেতাকর্মী সমর্থক ও ভোটাদের দৃষ্ঠিও এখন কেন্দ্রের দিকে।

বিভিন্ন দলীয় সুত্রে প্রাপ্ত তথ্যমতে মনোনয়ন কেনার তালিকায় রয়েছেন,

লালমনিরহাট ১ (হাতীবান্ধা পাটগ্রাম) আসনে নৌকার মাঝি হতে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন কিনেছেন, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক প্রতিমন্ত্রী বর্তমান সংসদ সদস্য মোতাহার হোসেন, পাটগ্রাম উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বাবুল, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মকবুল হোসেন।

এ আসনে ৫টি মনোনয়ন বিক্রি করেছে বিএনপি। এরা হলেন, বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ব্যারিষ্টার হাসান রাজিব প্রধান, কেন্দ্রীয় আইনজিবী দলের যুগ্ন সম্পাদক মাজেদুল ইসলাম পাটোয়ারী উজ্জল, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের যুগ্ন সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীন আকন্দ, হাতীবান্ধা উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক মোশারফ হোসেন, উপজেলা যুবদলের সম্পাদক হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শামছুজ্জামান সেলিম।

জাতীয় পার্টি থেকে এ আসনে একমাত্র মনোনয়নটি কিনেছেন জাপা চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মেজর(অব) খালেদ আখতার।

লালমনিরহাট ২ (আদিতমারী কালীগঞ্জ) আসনে নৌকার মাঝি হতে মনোনয়ন কিনেছেন, সমাজ কল্যান প্রতিমন্ত্রী বর্তমান সংসদ সদস্য নুরুজ্জামান আহমেদ, এফবিসিসিআই’র সাবেক পরিচালক সিরাজুল হক, জেলা পরিষদের সদস্য সেলিম হায়দার ও উপজেলা পরিষদে ভাইস চেয়ারম্যার পদে পরাজিত এমদাদুল হক।

বিএনপি’র প্রার্থী হিসেবে এ আসনের মনোনয়ন কিনেছেন, সাবেক সংসদ সদস্য জেলা বিএনপি’র সহ সভাপতি সালেহ উদ্দিন আহমেদ হেলাল, চন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, জিয়া পরিষদের রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বোরোবি’র শিক্ষক ড. রোকনুজ্জামান।

এ আসনটিতে জাতীয় পার্টির একমাত্র মনোনয়ন কিনেছেন কেন্দ্রীয় কমিটির সমাজ কল্যান সম্পাদক রোকন উদ্দিন বাবুল।

লালমনিরহাট ৩ (সদর) আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন কিনেছেন, বর্তমান সংসদ সদস্য আবু সালেহ মোঃ সাঈদ দুলাল, তার ছেলে ড. তানভির ফেরদৌস অনিন্দ্য, বর্তমান সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সফুরা বেগম রুমী, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গোকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা স্বপন।

এ আসনে বিএনপি’র এখন পর্যন্ত্র একমাত্র মনোনয়ন কিনেছেন কেন্দ্রীয় বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক উপমন্ত্রী জেলা বিএনপি’র সভাপতি অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু।

লাঙ্গল প্রতিকের আশায় এ আসনে জাতীয় পার্টির কো চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের প্রতিদ্বন্দ্বি হয়ে জাপা’র মনোনয়ন কিনেছেন জেলা জাপা’র সাবেক সদস্য সচিব ( বহিস্কৃত) অধ্যক্ষ মাহবুবুল আলম মিঠু।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য