হাবিপ্রবি বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের আধুনিক গবেষণাগারের উদ্বোধনআব্দুল মান্নান,হাবিপ্রবিঃদিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের অন্তর্ভুক্ত বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের নিজস্ব গবেষণাগারের উদ্বোধন করা হয়েছে ।

আজ বুধবার(১৪ নভেম্বর)দুপুর বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে কৃষি অনুষদের নিচ তলায় নব সজ্জিত এই ল্যাবের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সলর প্রফসর ড. মু. আবুল কাসেম। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. মো. সফিউল আলম ,কৃষি অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মো.আতাউর রহমান,জন সংযোগ ও প্রকাশনা শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. শ্রীপতি সিকদার,ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক ড. মো. তারিকুল ইসলাম,কৃষি বনায়ন ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড.মো. শোয়াইবুর রহমান, বায়োকেমিস্ট্রি ও মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মো. আবু সাঈদ সহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও মাস্টার্সে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী বৃন্দ।

উদ্বোধনের পর একটি সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় ।ড. মো. আবু সাঈদের সঞ্চালনায় বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. ইয়াসিন প্রধান স্ববিভাগীয় শিক্ষকদের চলমান বিভিন্ন গবেষণা কার্যক্রমের চিত্র তুলে ধরেন।এসময় সম্প্রতি ড. আবু সাঈদের নেতৃতাধীন একদল গবেষক পোল্টি খামারে এন্টিবায়োটিক মুক্ত খাদ্যের গবেষণায় যে সফলতা পেয়েছেন তার একটি প্রামাণ্যচিত্র দেখানো হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম বলেন, শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নে ল্যাবের সুযোগ সুবিধা ও উন্নত গবেষণাগার এর বিকল্প নেই। একজন শিক্ষার্থীর দক্ষতা নির্ভর করে এর উপরে।শিক্ষার্থীরা এতোদিন অনেক কষ্ট করে পড়াশুনা করেছে, আশা করি এখন থেকে তাদের আর সেই কষ্ট থাকবেনা। বর্তমান সময় মলিকুলার যুগের ।তাঁরা ভাল ইন্সট্রুমেন্ট পেলে আশা করি,আরও অনেক ভাল কিছু করতে পারবে । তাদের প্রতি আমার সকল ধরনের সহযোগিতা থাকবে ।

বায়োকেমিস্ট্রি ও মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মো আবু সাঈদ জানান,২০১০ সালে উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. আফজাল হোসেন স্যারের সময় প্রথমবারের মতো আমরা আমাদের বিভাগের জন্য ১২ লাখ টাকা বরাদ্দ পেয়েছি ।এরপর দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও আমরা তেমন কোন সহযোগিতা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে পাইনি ।৮ বছর পরে মাননীয় ভিসি প্রফেসর ড. মু আবুল কাসেম স্যারের সহযোগিতায় আমরা আজকে নিজস্ব গবেষণাগারের উদ্বোধন করতে পেরেছি।এই গবেষণাগারটি প্রতিষ্ঠায় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৮ লাখ ৬৭ হাজার টাকা এবং দ্য ওয়াল্ড সাইন্স একাডেমি প্রকল্পের প্রধান তত্ত্ববধায়ক আমাদের বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. আজিজুল হক এর কাছ থেকে ১৭ হাজার আমেরিকান ডলার সহযোগিতা পেয়েছি।এজন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি ।

তিনি আরও বলেন নতুন এই গবেষণাগারটিতে গ্রেডিয়ান পিসিআর মেশিন, ইলেকট্রোফোরেসিস মেশিন,স্পেক্টোফোটোমিটার,সেন্ট্রফিউজ,ইনকিউবেটর,ওভেন,জেলইমেজিং মেশিনসহ বিভিন্ন উন্নত যন্ত্রপাতি দিয়ে ল্যাবটি সজ্জিত করা হয়েছে। তবে ল্যাবটিকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে আরও বেশ কিছু যন্ত্রপাতি প্রয়োজন ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য