গাজায় অভিযানকালে ইসরায়েলি কর্মকর্তাসহ নিহত ৮গাজায় ইসরায়েলি বিমান হামলা ও একটি গোপন অভিযানে সাত ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন।

রোববারের এসব ঘটনা চালাকালে ইসরায়েলি এক কর্মকর্তাও নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

অনুপ্রবেশকারী ইসরায়েলিদের হামলা ও তাদের বিমান হামলার জবাবে হামাস নিয়ন্ত্রিত গাজা থেকে ইসরায়েলে রকেট নিক্ষেপ করা হয়। এ সময় ইসরায়েলের গাজা সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোতে সাইরেনের শব্দ শোনা যায়।

ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, তারা দুটি রকেট প্রতিহত করেছে। ফিলিস্তিনিদের রকেট হামলায় ইসরায়েলের দিকের কারো হতাহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

এই সহিংস ঘটনার খবরে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু প্যারিস সফর সংক্ষিপ্ত করে দেশে ফিরে যান।

এক বিবৃতিতে হামাস জানিয়েছে, চলন্ত একটি গাড়ি থেকে অজ্ঞাত হামলাকারীরা তাদের বাহিনীর একটি দলের ওপর গুলিবর্ষণ করলে ঘটনার সূত্রপাত হয়। এ হামলায় তাদের এক কমান্ডার নিহত হন। হামাসের যোদ্ধারা ওই গাড়িটির পিছু নিলে সেটি দ্রুত বেগে ইসরায়েলি সীমান্তের দিকে ছুটতে শুরু করে।

এই পশ্চাদ্ধাবনের সময় ইসরায়েলি জঙ্গি বিমানগুলো ওই এলাকায় ৪০টির মতো ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

হাসপাতালের কর্মী ও হামাস কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ইসরায়েলি হামলায় অন্তত সাত জন নিহত হয়েছেন, এদের মধ্যে হামাসের সশস্ত্র শাখা আল কাসাম বিগ্রেডের খান ইউনুস এলাকার কমান্ডার শেখ নুর বারাকাহসহ আরও তিন যোদ্ধা রয়েছেন।

নিহত অপর তিন জন বেসামরিক না আল কাসাম বিগ্রেডের সদস্য তা পরিষ্কার হয়নি।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, গাজা ভূখণ্ডের প্রায় তিন কিলোমিটার ভিতরে ইসরায়েলি স্পেশাল ফোর্স এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ হামাসের।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, হামলাকারীদের ধাওয়া কালে দুপক্ষের মধ্যে গোলাগুলি শুরু হয় আর তখনই ইসরায়েলে দিক থেকে ট্যাঙ্কের গোলা ছোড়া হয় ও ইসরায়েলি বিমানগুলো ওই এলাকায় হামলা চালায়।

এসব ঘটনার বিষয়ে ইসরায়েলের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি, কিন্তু পরে তারা তাদের সব সৈন্য ফিরেছে বলে দাবি করে।

আরও পরে দেওয়া এক বিবৃতিতে দেশটি বলেছে, “গাজা ভূখণ্ডে আইডিএফের (ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী) স্পেশাল ফোর্সের অভিযান চলাকালে গোলাগুলি শুরু হয়েছিল। এই ঘটনায় আইডিএফের এক কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন ও আরেক কর্মকর্তা সামান্য আহত হয়েছেন। ঘটনার বিষয়ে তাদের পরিবারকে অবহিত করা হয়েছে।”

বিবিসির মধ্যপ্রাচ্য প্রতিনিধি জানিয়েছেন, গাজার ভিতরে ইসরায়েলি স্পেশাল ফোর্সের এ ধরনের অভিযান প্রকাশ হয়ে পড়া অত্যন্ত বিরল একটি ঘটনা।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে দুপক্ষের মধ্যে ধারাবাহিক সহিংতা ঘটার পর মিশর ও জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় পরিস্থিতি শান্ত হয়ে আসার পর এ ঘটনাটি ঘটল।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে হামাস কমান্ডারদের আলাদভাবে লক্ষ্যস্থল করার ইসরায়েলি নীতি পরিত্যক্ত হয়েছিল, কিন্তু এই নীতি যদি তারা আবার ফিরিয়ে আনে তবে তা গাজা-ইসরায়েল সীমান্তে উত্তেজনা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করবে বলে শঙ্কা বিশ্লেষকদের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য