ইতালিতে আকস্মিক বন্যায় দুই পরিবারের ৯ জনের মৃত্যুইতালির সিসিলিতে নদীতে দেখা দেওয়া আকস্মিক বন্যায় বাড়ি ডুবে দুই পরিবারের নয় জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে এক বছর ও তিন বছর বয়সী দুটি শিশু, এক কিশোর বয়সী ও পরিবার দুটির দাদা-দাদীরা রয়েছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

শনিবার রাতে সিসিলির ক্যাস্তেলদাতশার এই ঘটনার সময় পরিবার দুটির তিন সদস্য বাড়ির বাইরে থাকায় প্রাণে বেঁচে গেছেন। ওই রাতে দুই পরিবারের ১২ জন এক বাড়িতে জড়ো হয়েছিলেন। ওই রাতেই পাশের মিলিচা নদীর পানি হঠাৎ বেড়ে গিয়ে পাড় উপচে বাড়িটি ডুবিয়ে দেয়।

পরিবার দুটির তিন জন ঘটনাক্রমে বেঁচে গেছেন। কী এক কাজে এক বাবা ও কন্যা বাইরে যাওয়ায় তারা বেঁচে যান, অপরজন দুই সন্তানের জনক আরেক পিতা একটি গাছে উঠে রক্ষা পান। ওই তিন শিশু-কিশোর ছাড়া মৃতদের মধ্যে আরও যারা আছেন তারা হলেন, দুই সন্তানের এক মা, তার ভাই, বোন ও বাবা-মা এবং বেঁচে যাওয়া পিতাদের একজনের মা।

এক প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায় ঘটনার কয়েক মিনিট আগের পরিস্থিতি উঠে এসেছে।

মারিয়া কনসেত্তো আলফানো নামের ওই প্রত্যক্ষদর্শী বলেছেন, “শুনতে পেলাম কুকুরগুলো ডাকছে। রাত সাড়ে ১০টার (স্থানীয় সময়) মতো হবে। কী হচ্ছে বাইরে গিয়ে দেখার জন্য আমার স্বামীকে বললাম। ও দরজা খুললো আর পানি এসে বাড়িটি ডুবিয়ে দিল।”

এ ঘটনাকে ‘ভয়ানক ট্র্যাজেডি’ বলে বর্ণনা করেছেন স্থানীয় মেয়র জোভান্নি ডি জাচিন্তো। মিলিচা একটি ছোট নদী এবং নদীটিতে কখনো এতো পানি হয়নি বলে জানিয়েছেন তিনি।

“ক্যাস্তেলদাতশার জন্য এটি কখনো কোনো হুমকি ছিল না, আর খুব বৃষ্টির দিনও এটি ছিল না,” বলেছেন তিনি। এদের পাশাপাশি সিসিলির দক্ষিণাঞ্চলীয় দ্বীপে বন্যার পানিতে গাড়ি ভেসে গিয়ে আরও তিন ব্যক্তি মারা গেছেন।

ইতালির উত্তরাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলে কয়েকদিনের ব্যাপক ঝড়বৃষ্টিতে অন্তত ১৭ ব্যক্তি মারা গেছেন বলে খবর গণমাধ্যমের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য