চিরিরবন্দরে আগাম আমন চাষে কৃষকের মঙ্গা উধাওচিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে আগাম আমন ধান কাঁটতে শুরু করায় এলাকার কৃষকদের কাছ থেকে মঙ্গা উধাও হয়েছে। ফলে এলাকার কৃষকদের মুখে এখন শুধু হাসি আর হাসি। ফসল ভরা মাঠ থেকে ধান কেঁটে ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময়ও পার করছেন তারা। চলতি মাসের প্রথম দিক থেকে এ এলাকায় আগাম জাতের আমন ধান কাটা ও মাড়াই শুরু হয়েছে।

উপজেলার কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার উপজেলায় ২৩ হাজার ২ শত ৭৫ হেক্টর জমিতে ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা অর্জিত হয়েছে ২৩ হাজার ৩ শত ১০ হেক্টর জমি। যা লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে গত বছরের তুলনায় অনেক বেশী ফলন হয়েছে। তবে এবারে পার্চিং পদ্ধতি ব্যাপক হারে ব্যবহারের ফলে রোপা আমন ধানের ভালো ফলন আশা করছে কৃষি বিভাগ।

তবে উপজেলায় সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয় কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বাংলা সনের আশ্বিন শেষ হতে না হতেই চারিদিকে আগাম জাতের আমন ধান কাঁটা শুরু হয়েছে। তবে যে সকল মাঠ উচু এবং আগাম জাতের আলু রোপন করার মতো জমি। সেই সকল জমিতে আগাম জাতের আমন ধান কাঁটতে ব্যস্ত সময় পার করছেন এলাকার কৃষকেরা।

সেই সাথে গৃহিনীরাও বাড়ির আঙ্গিনা ও উঠান তৈরীর কাজে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। উপজেলার সাতনালা গ্রামের আরিফ হোসেন বলেন, এবার ২ বিঘা জমিতে বিনা-৭ ধান চাষ করেছি। আবহাওয়া ভাল থাকায় বিঘা প্রতি ২০ থেকে ২২ মন ধান হয়েছে। তাছাড়াও ধানের দামও বেশি। এই মুহুর্তে ধান বিক্রি করলে আমার সবকিছু খরচ বাবদ বাদ দিয়ে বিঘা প্রতি ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা লাভ হবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: মাহামুদুল হাসানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, কৃষকেরা গত বছরের চেয়ে সঠিক সময়ে ধান চাষ করায় বর্তমান আশানুরূপ ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। এবার চিরিরবন্দরে আমন ধান চাষ বেশি হয়েছে। আবহাওয়া অনুকুল থাকায় এবারে ফলন বেশ ভাল হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য