11 18 18

রবিবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং | ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৯ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

Home - জেনে রাখুন - কিডনির স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য কী কী করা উচিত

কিডনির স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য কী কী করা উচিত

কিডনির স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য কী কী করা উচিতআপনার শরীরে কি ভিটামিন ডি-র ঘাটতি আছে? এই উপমহাদেশের বাসিন্দাদের সাধারণত এই সমস্যা থাকে এবং আমরা তা নিয়ে বিশেষ মাথাও ঘামাই না৷ ব্যাপারটা দীর্ঘদিন পুষে রাখবেন না, এখনই ডাক্তারের পরামর্শ মেনে ডায়েটে পরিবর্তন নিয়ে আসুন, প্রয়োজনীয় সাপ্লিমেন্ট খান৷ সাম্প্রতিক সমীক্ষায় প্রকাশিত হয়েছে যে শরীরে ভিটামিন ডি-র ঘাটতি থাকলে কিডনির অসুখে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা ক্রমশ বাড়তে থাকে৷

App DinajpurNews Gif

যাঁদের ঘুমের সমস্যা আছে বা রোজ সাত-আট ঘণ্টা ঘুমোনোর অবসর থাকে না, তাঁরাও সাবধান হোন৷ ঘুমের অভাব কিডনির স্বাস্থ্যের উপর ঋণাত্মক প্রভাব ফেলে৷ এতদিন আমাদের ধারণা ছিল যে দীর্ঘকাল ধরে তীব্র বায়ুদূষণের শিকার হলে ফুসফুস বা হৃযযন্ত্রের সমস্যা হতে পারে, কিন্তু একেবারে হালের সমীক্ষা থেকে জানা যাচ্ছে যে দূষিত বায়ু কিডনির স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রেও অত্যন্ত হানিকারক৷

গ্রিন টি পান করলে নাকি কিডনির স্বাস্থ্য ভালো থাকে, সিট্রাস ফল বা নানা ধরনের লেবু খাদ্যতালিকায় থাকলে কিডনিতে চট করে স্টোন হয় না৷ আরও বলা হয় যে গর্ভাবস্থা থেকেই মায়ের নিজের স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নশীল হওয়া উচিত, ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলুন অক্ষরে অক্ষরে৷ একমাত্র তা হলেই শিশুর কিডনির স্বাস্থ্য ভালো থাকবে৷ জেনারেল প্র্যাকটিশনার ডা. ফুয়াদ হালিম আরও তিনটি বিষয় মেনে চলার উপর খুব জোর দিচ্ছেন৷

প্রথমত, প্রচুর জল খান। তিন লিটারের কমে চলবে না, 60 কেজি ওজনের প্রাপ্তবয়স্করা সাড়ে চার লিটার পর্যন্ত জল খেতে পারেন। ওজন বেশি হলে বা খুব ঘামলে জল খাওয়ার পরিমাণ আরও একটু বাড়ান। জল আপনার শরীরকে ভিতর থেকে সুস্থ রাখবে। যাঁদের হার্টের অসুখ বা অন্য কোনও সমস্যার কারণে জলপানের উপর বিধিনিষেধ আছে, তাঁরা ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলুন।

দুই, কিডনি আপনার শরীরের ওয়াশরুম হিসেবে কাজ করে। সেটা পরিষ্কার রাখার চেষ্টাটা আপনাকেই করতে হবে। যাঁদের ইউরিক অ্যাসিড, হাইপারটেনশন বা ডায়াবেটিসের সমস্যা আছে, তাঁরা প্রয়োজনীয় বিধিনিষেধ মেনে চলুন, রোগ নিয়ন্ত্রণে থাকলে কিডনিও সুস্থ থাকবে। এই দু’টি রোগই কিন্তু কিডনির উপর নেগেটিভ প্রভাব ফেলে৷

তিন, ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খাওয়ার অভ্যেস থাকলে সেটা বন্ধ করতে হবে। এর সুদূরপ্রসারী ফল ভোগ করতে বাধ্য হয় আপনার শরীর৷ কিডনি সারা শরীরের ছাঁকনি হিসেবে কাজ করে। আপনি যত ওষুধ খাবেন, তার রেসিডিউ এসে জমা হবে কিডনিতে। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া পেন কিলার বা অ্যান্টিবায়োটিক খাবেন না। -সুত্র ফেমিনা

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য