রোমের ভগ্নদশার প্রতিবাদে হাজারো মানুষের বিক্ষোভভগ্নদশা পরিস্থিতির প্রতিবাদে কয়েক হাজার মানুষ ইতালির রাজধানী রোমের রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েছে।

নিয়ন্ত্রণহীন ময়লার স্তূপ ও এবড়োখেবড়ো সড়কসহ বিভিন্ন অভিযোগে মেয়র ভির্জিনিয়া রাজ্জির নিন্দা জানাতে বিক্ষোভকারীরা শনিবার নগরীর সিটি হলের সামনে জড়ো হন বলে খবর বিবিসির।

ফাইভ স্টার মুভমেন্টের (এম৫এস) প্রার্থী রাজ্জি ২০১৬ সালে রোমের মেয়রের দায়িত্ব নিয়েছিলেন। এম৫এস ওই বছরের প্রথম দিকে জাতীয় জোট সরকারও গঠন করেছিল।

ঋণে জর্জরিত রোম শহরের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ হওয়ার জেরে রাজ্জির জনপ্রিয়তা হ্রাস পেয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা, বিপজ্জনক ফুটপাত অথবা উপড়ে পড়া গাছ ঘিরে রাখতে কর্তৃপক্ষ যে ধরনের কমলা রংয়ের নেট ব্যবহার করে সে রকম নেট দোলাতে দোলাতে বিক্ষোভকারীরা প্রতিবাদস্থলে জড়ো হয়।

নগরীটি অন্য যেসব সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে তার মধ্যে ইঁদুরের উপদ্রব, রাস্তায় বন্য শুকর ঘুরে বেড়ানো ও দুর্বল জনপরিবহন ব্যবস্থা অন্যতম। শুধু চলতি বছরেই প্রায় ২০টি বাস আগুন ধরে জ্বলে যায় বলে খবর।

গত সপ্তাহে রোমের একটি প্রধান মেট্রো স্টেশনে চলন্ত সিঁড়ি দুর্ঘটনায় ২০ জনেরও বেশি লোক আহত হয়েছিল। আহতদের বেশিরভাগই ছিলেন রুশ পর্যটক, তারা রাশিয়ার ফুটবল ক্লাব সিএসকেএ মস্কোর সমর্থক। রোমা ফুটবল ক্লাবের সঙ্গে সিএসকেএর চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ম্যাচ দেখতে তারা রোমে গিয়েছিল।

এই দুর্ঘটনার পরও প্রতিবাদ দেখিয়েছিল রোমের বাসিন্দারা।

রোমের প্রথম নারী মেয়র রাজ্জি জানিয়েছেন, নগরীর সমস্যা নিয়ন্ত্রণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন তিনি, এই কাজ শেষ করতে আরও সময় প্রয়োজন।

কিন্তু সমালোচকরা বলছেন, ভালোতো হচ্ছেই না, দিন দিন পরিস্থিতি আরও খারাপ হচ্ছে।

প্রাচীন এই নগরীটিতে বেশ কয়েকটি শোচনীয় ঘটনা ঘটার পর সামাজিক যোগাযোগ ব্যবহারকারীরা হ্যাশট্যাগ #রোমাদিসেবাস্তা (রোম বলছে অনেক হয়েছে) ব্যবহার করতে শুরু করেছে।

পরিত্যাক্ত একটি ভবনে ১৬ বছর বয়সী এক কিশোরীর মৃতদেহ পাওয়ার পর পুলিশ তিন অভিবাসীকে গ্রেপ্তার করে। ওই কিশোরীকে মাদক সেবন করানোর পর দলগতভাবে ধর্ষণ করা হয়েছিল।

অনলাইনে পোস্ট করা বিভিন্ন ভিডিওতে দেখা গেছে, রোমের রাস্তায় কিছু সংখ্যাক বন্য শুকর দৌঁড়াদৌঁড়ি করছে এবং ময়লার স্তূপে ভোজে মেতেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য