ডাকযোগে বোমা ফ্লোরিডায় গ্রেপ্তার ১যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনাকারীদের ঠিকানায় ডাকযোগে অন্তত ১৪টি পাইপ বোমা পাঠানোর সঙ্গে জড়িত সন্দেহে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলি

সেজার সায়ক নামে ৫৬ বছরের ওই ব্যক্তিকে শুক্রবার ফ্লোরিডার প্লানটেশনের একটি অটোপার্টসের দোকানের কাছ থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানায় বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

মুদি দোকানের কর্মী সায়ক মাঝেমাঝে পিৎজা ডেলিভারির কাজও করেন। একসময় তিনি নগ্ন নাচ করতেন।

তার বিরুদ্ধে এর আগে বিল নিয়ে বাকবিতণ্ডার সময় একটি ইলেক্ট্রিক কোম্পানিতে বোমা মারার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে বলেও জানায় রয়টার্স।

সায়ক সাদা রঙের যে ভ্যানে বসবাস করতেন সেটিও জব্দ করেছে পুলিশ। ভ্যানের জানালায় ট্রাম্পকে সমর্থন করে নানা ধরনের স্টিকার সাঁটা আছে। এছাড়াও সেটিতে ডেমক্রেটিক নেতাদের ছবিতে লাল ক্রস চিহ্ন দেওয়া।

সায়ককে গ্রেপ্তারের পর এক সংবাদ সম্মেলনে এফবিআই পরিচালক ক্রিস্টোফার ওয়ারি বলেন, আঙ্গুলের ছাপ এবং ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে সন্দেহভাজনকে সনাক্ত করা হয়েছে।

তবে সায়ক গ্রেপ্তার হওয়া মানে বোমার হুমকি শেষ হয়ে গেছে এমনটা এখনই ভেবে নেওয়া ঠিক হবে না বলেও মত প্রকাশ করেন তিনি।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন এবং অভিনেতা রবার্ট ডি নিরোর মত এরকম ১২ জন বিশিষ্ট ব্যক্তির কাছে ডাকযোগে পাইপ বোমা এসেছে। সবশেষে একই ধরনের পার্সেল আসে শুক্রবার ফ্লোরিডা এবং নিউ ইয়র্ক সিটি তে।

যুক্তরাষ্ট্রে নভেম্বরের আসন্ন মধ্যবর্তী নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক মেরুকরণ তুঙ্গে থাকার সময়টিতে এ বোমা পাঠানোর ঘটনা ঘটল।

গত সোমবার ধনকুবের জর্জ সোরোসের বাড়িতে প্রথম ডাকযোগে পাইপ বোমা পাঠানো হয়েছিল বলে খবর দিয়েছিল পুলিশ।

এভাবে প্যাকেট করে ডাকযোগে পাইপ বোমাগুলো পাঠানো হয়।

ইন্টারনেটে দেখে ওই বোমাগুলো বানানো হয়েছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানান পুলিশের এক কর্মকর্তা।

তদন্তকারীদের বিশ্বাস, সবগুলো বোমাই ডাকযোগে পাঠানো হয়েছে। সেগুলো প্রাপকের কাছে পৌঁছানোর আগেই সনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে, কোনোটিই বিস্ফোরিত হয়নি।

মধ্যবর্তী নির্বাচনের আগে ডেমক্র্যাটিক নেতা এবং ট্রাম্পের সমালোচকদের ঠিকানায় বোমা পাঠানোর ঘটনা স্বাভাবিকভাবেই রাজনীতিতে উত্তাপ ছড়াচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য