‘উলিপুর বাঁচাও-বুড়িতিস্তা বাঁচাও’ আন্দোলনের কর্মীদের সাথে মতবিনিময়জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমান হাওলাদার বলেন, বুড়িতিস্তা নদী নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে সকল পদক্ষেপ নেয়া হবে।

যারা বুড়িতিস্তা নদীর জায়গা-জমি নিজের নামে অবৈধভাবে কাগজপত্র তৈরি করেছে ,তাদের জমির সৃজন করা সকল কাগজপত্র বাতিল করার জন্য জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দেন।

আজ রবিবার দুপুরে জেলার উলিপুর উপজেলার বুড়িতিস্তা নদীর উপর নির্মিত গুনাইগাছ ব্রীজের উপর ‘উলিপুর বাঁচাও-বুড়িতিস্তা বাঁচাও’ আন্দোলনের কর্মীদের সাথে মতবিনিময় কালে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, কমিশনের সার্বক্ষনিক সদস্য মোঃ আলাউদ্দিন, অবৈতনিক সদস্য মো. মনিরুজ্জামান, পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলী মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এস,এম মেহেদি হাসান,

উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মতি শিউলী, উলিপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু সাঈদ সরকার, সাধারণ সম্পাদক সহকারী অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম সরদার, সাংবাদিক পরিমল মজুমদার, মন্জুরুল হান্নান, রেল-নৌ, যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণ কমিটির জেলা শাখার কার্যকরি সদস্য মাসুম করিম, উলিপুর উপজেলা শাখার সভাপতি আপন আলমগীর, সাধারণ সম্পাদক নুর আমিনসহ শতাধিক নদীযোদ্ধা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, উলিপুর প্রেসক্লাব ও রেল-নৌ,যোগাযোগ ও পরিবেশ উন্নয়ন গণ কমিটি ‘উলিপুর বাঁচাও-বুড়িতিস্তা বাঁচাও’ আন্দোলনের অংশ হিসেবে গত ২০১৭ইং সালের ১৩ মার্চ মানববন্ধন, ২২ মার্চ বাইসাইকেল র‌্যালী, ১১ এপ্রিল প্রতিকী পানির ঢল, ১৭ মে পঁচা ধানগাছ রাস্তায় ছিটিয়ে বিক্ষোভ ও ২০১৮ ইং সালের ৪ এপ্রিল মোটর সাইকেল র‌্যালী কর্মসূচি পালন করে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য