প্রেসিডেন্ট ইয়ামিনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞার দাবি মালদ্বীপের বিরোধীদেরপ্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনের দেশত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপে পুলিশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মালদ্বীপের বিরোধী দল। নির্বাচনে পরাজয়কে আদালতে করা চ্যালেঞ্জে হেরে যাবার পর পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন ইয়ামিন। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিরোধীদলের পক্ষ থেকে এই আহ্বান জানানো হয় বলে জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

গত ২৩ সেপ্টেম্বরের নির্বাচনে ভারতের অন্যতম মিত্র ইব্রাহিম মোহাম্মদ সোলিহর কাছে পরাজিত হন ইয়ামিন। প্রতিদ্বন্দ্বির চেয় ১৬ শতাংশ কম ভোট পান মালদ্বীপের চীনপন্থী প্রেসিডেন্ট ইয়ামিন। যুক্তরাষ্ট্র, চীন ভারত এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নও এই ফলাফলকে স্বাগত জানালেও নির্বাচনে নানা অনিয়মের অভিযোগ তোলেন প্রেসিডেন্ট ইয়ামিন। এনিয়ে আদালতে মামলাও দায়ের করেন তিনি। বুধবার তার সেই মামলা খারিজ করে দিয়েছে দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। আগামী ১৭ নভেম্বর মেয়াদ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত দায়িত্ব পালনের ঘোষণা দিলেও মামলায় হেরে পদত্যাগ করবেন বলে জানান।

ইয়ামিনের বিরুদ্ধে বিরোধী দলের কর্মী, সংবাদমাধ্যম ও অধিকার কর্মীদের ওপর দমনপীড়নের অভিযোগ রয়েছে। বুধবার গভীর রাতে মালেতে বিরোধী দলের আইনজীবী হাসান লতিফ সাংবাদিকদের বলেন, দুর্নীতির অভিযোগে বিচারের মুখোমুখি হওয়া ছাড়া ইয়ামিনকে অবশ্যই দেশ ছাড়তে দেওয়া হবে না। পুলিশ সদর দফতরের বাইরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাসযোগ্য খবর পাচ্ছি যেকোনও মুহূর্তে দেশ ছাড়তে পারেন ইয়ামিন।’ ইয়ামিনের দেশত্যাগ ঠেকিয়ে পুলিশকে তার দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তের দাবি জানান ওই আইনজীবী। তবে তাৎক্ষনিকভাবে এনিয়ে মন্তব্য করেনি পুলিশ কর্তৃপক্ষ।

তবে বিরোধীদের দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন ইয়ামিনের মুখপাত্র মুয়াজ আলী। স্থানীয় সংবাদপত্র মিহারুকে তিনি বলেন, তিনি কখনও দেশ ছেড়ে যাবেন না আর যেকোনও তদন্তে সহায়তা করতে প্রস্তুত রয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য