Arrest2পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলায় শেফালি আক্তার (২০) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার সকালে ওই গৃহবধূ পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে মারা যান। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর শ্বশুর, শাশুড়ি ও ননদকে আটক করেছে পুলিশ।

শেফালির পরিবারের দাবি, মারধর করে মুখে বিষ ঢেলে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৩ বছর আগে তেঁতুলিয়া উপজেলার দেবনগর ইউনিয়নের বর্মতল এলাকার সাইবুল ইসলামের মেয়ে শেফালি আক্তারের সাথে একই উপজেলার তেঁতুলিয়া সদর ইউনিয়নের দর্জিপাড়া গ্রামের খাদেমুল ইসলামের ছেলে লিটন ইসলামের বিয়ে হয়। বিয়ের পরেই যৌতুকের দাবিতে শেফালিকে মারধর করতো লিটন। এ বিষয়ে একাধিকবার শালিস বৈঠকও হয়েছে।

গত রোববার দুপুরে শেফালি বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ি ফিরলে আবারও তাকে মারধর করা হয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে তেঁতুলিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। সোমবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছে শেফালীর বাবা সাহিবুল ইসলাম।

তেতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জহুরুল ইসলাম বলেন, নিহত শেফালি আক্তারের স্বামী পলাতক রয়েছে। এ ঘটনার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই গৃহবধূর শ্বশুর, শাশুড়ি ও ননদকে আটক করেছে পুলিশ। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য