কুড়িগ্রামের উলিপুরে দূর্গা প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এ ঘটনায় হিন্দু সমাজের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে নারিকেলবাড়ী গাছতলা গোবিন্দ জীঁউ মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক নলিনী কান্ত বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে পৌরসভার ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল কাশেমের পুত্র হিরা ইসলাম (২৫) কে গ্রেপ্তার করেছে। আজ সোমবার আটককৃত যুবককে কুড়িগ্রাম জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, আসন্ন শারদীয় দূর্গাপুজা উপলক্ষ্যে পৌরসভার নারিকেল বাড়ী গাছতলা গোবিন্দ জীঁউ মন্দির ও নারিকেল বাড়ী বকুলতলা দূর্গা মন্দিরে থাকা শিব মূর্তি গতকাল রবিরার রাতের আধারে ভাংচুর করে দূর্বৃত্ত্বরা।

মন্দিরে পাহাড়ারত সুব্র সরকার (১৮), মৃন্ময় সরকার (১৬) ও সুদর্শন সরকার (১৮) নামের যুবকরা জানায়, প্রতিমা ভাংচুর শেষে দূর্বৃত্তরা পালিয়ে যাওয়ার সময় শব্দ পেয়ে আমাদের ঘুম ভেঙ্গে যায়। তাদের দৌঁড়ে পালাতে দেখে আমাদের চিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে আসে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

নারিকেলবাড়ী গাছতলা গোবিন্দ জীঁউ মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক নলিনী কান্ত সরকার বলেন, পাহাড়াদারদের চিৎকার শুনে মন্দিরে এসে দেখি প্রতিমা ভাংচুর করা হয়েছে।

বাংলাদেশ পূঁজা উদ্যাপন পরিষদ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সৌমেন্দ্র প্রসাদ পান্ডে গবা জানান, নারিকেল বাড়ি এলাকার ২টি মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর হয়েছে। এটা দুঃখজনক।

থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে এক যুবককে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য