ভারতে নিবন্ধিত রোহিঙ্গা সংখ্যা ১৮ হাজারভারতের বিভিন্নস্থানে বসবাস করা প্রায় ১৮ হাজার রোহিঙ্গা জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএিইচসিআর’র নিবন্ধন করেছে। জাতিসংঘের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন ইউএনএইচসিআর’র ভারতীয় কার্যালয়ে শরণার্থী বা রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থী হিসেবে এসব রোহিঙ্গাদের নিবন্ধন রয়েছে। সম্প্রতি ভারত থেকে সাত রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো নিয়ে উদ্বেগের মধ্যে এতথ্য জানালো সংস্থাটি। তবে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের ধারণা দেশটিতে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা বসবাস করছে।

আশ্রয় নিতে ভারতে পালিয়ে এসে ২০১২ সালে অনুপ্রবেশের দায়ে আটক হয়ে ভারতে কারাভোগ করে সাত রোহিঙ্গা। কারাদণ্ড শেষ হলে আসাম সীমান্ত দিয়ে গত বৃহস্পতিবার (৪ অক্টোবর) তাদের মিয়ানমারের নিরাপত্তাবাহিনীর হাতে তুলে দেয় ভারতের পুলিশ। রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর সেনা নির্যাতনের প্রেক্ষাপটে ফেরত পাঠানো এসব রোহিঙ্গার ভাগ্য নিয়ে শুক্রবার উদ্বেগ প্রকাশ করে বিবৃতি দেয় ইউএনএইচসিআর।

রবিবার জেনেভায় জাতিসংঘ কার্যালয়ে ইউএনএইচসিআর’র মুখপাত্র আন্দ্রেজ মাহেসিক বলেন, কোন পরিস্থিতির আওতায় এসব ব্যক্তিকে মিয়ানমারে পাঠানো হয়েছে আমরা কর্তৃপক্ষের কাছে তা জানতে চেয়েছি।

ভারতে বসবাসরত নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ইউএনএইচসিআর পরিচয়পত্র এবং রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থীদের নথি দিয়েছে। এর মাধ্যমে তারা বিচারবর্হিভূত গ্রেফতার, আটক ও প্রত্যাবাসন ঠেকাতে পারবে। গত সপ্তাহে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের ভারত সফরের পরেই সাত রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানো হয়।

ফেরত পাঠানোর আগে এসব রোহিঙ্গারা আসাম রাজ্যের শিলচর কারাগারে আটক ছিলেন। ২০১২ সালে মিয়ানমার সীমান্তবর্তী মনিপুর রাজ্য থেকে তাদের আটক করা হয়। ইউএনএইচসিআর’র মুখপাত্র আন্দ্রেজ মাহেসিক বলেন, তাদরে আটক এবং ফেরত পাঠানোর পরিকল্পনার কথা জানার পর এবং ওই সাতজন রোহিঙ্গা এমন বিশ্বাসযোগ্য তথ্য পাওয়ার পর ইউএনএইচিসআর ভারতীয় কর্তৃপক্ষকে তাদের সেখানে থাকতে দিয়ে আন্তর্জাতিক শরণার্থী সুরক্ষার জন্য তাদের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি মূল্যায়ন করার সুযোগ দেওয়ার আহ্বান জানায়। সংস্থাটির মুখপাত্র দাবি করেন ভারতীয় কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে সেই আহ্বানের কোনও সাড়া দেওয়া হয়নি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য