Arrest2দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুর নবাবগঞ্জ উপজেলার পুলিশের সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান চালিয়ে ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন জামায়াতের আমীরসহ ৯ জনকে ককটেল, পেট্রোলসহ আটক করা হয়েছে। এই ঘটনায় ওই থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

দিনাজপুর নবাবগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ সুব্রত সরকার জানান, গতকাল শনিবার রাত ১২টায় নবাবগঞ্জ উপজেলার ৬নং ভাদুরিয়া ইউনিয়নের রনজয়পুর গ্রামের ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর জাহাঙ্গীর আলম (৫৪) এর বাড়ীতে সরকার বিরোধী নাশকতা কর্মকান্ড পরিকল্পনায় বৈঠক করছিল।

এ সংবাদ পেয়ে পুলিশের একটি অভিযান টিম ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর ও ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদকসহ ৯ জনকে আটক করতে সক্ষম হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৫টি ককটেল, ১টি কৌটায় ভর্তি বাইসাইকেলের লোহার বল, ১ কৌটা ভাঙ্গা কাচের টুকরা, ১০টি জর্দার কৌটা, ৫টি লালটেপ, ১টি বড় হেসকো ব্লেড, ১২টি ম্যাচ, ১টি সেভেনআপের বোতল, ২লিটার পেট্রোল ও ১০টি বাসের লাঠি উদ্ধার করা হয়।

ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতারকৃত ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর জাহাঙ্গীর আলম (৫৪), জামায়াত নেতা আশরাফুল (৪০), মফিজুল (৩০), শফিকুল (৫৫), মেজবাহুল হক ওরফে সৌরভ (২৮), আব্দুল আলিম (৩৭), ওসমান হোসেন (২৫), হাবিবুল্লাহ (২৭) ও ভাদুরিয়া ইউপি বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান (৩২)কে থানায় সোপর্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃত ৯ জামায়াত-বিএনপি ক্যাডার পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে বেশ কিছু তথ্য প্রদান করেছে। প্রাপ্ত তথ্য পুলিশ অনুসন্ধান করে দেখছে।

এই ঘটনায় নবাবগঞ্জ থানার এসআই কিবরিয়া বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইন ও তৎসহ বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সৈকত হোসেন আজ রোববার গ্রেফতারকৃত ৯ আসামীকে দুপুর ২টায় দিনাজপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। বিচারক প্রত্যেককে ২ দিন করে রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছেন। বিকেলে ৯ আসামীকে পুলিশ রিমান্ডে নিয়ে সন্ধ্যার পর থেকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য