জার্মানিতে ইউরোপের অন্যতম বড় মসজিদ উদ্বোধন এরদোয়ানেরজার্মানিতে ইউরোপের অন্যতম বড় একটি মসজিদ উদ্বোধন করার পর দেশটিতে তিনদিনের সফর শেষ করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিজেপ তায়িপ এরদোয়ান।

কোলনের এই মসজিদটি শান্তির প্রতীক হয়ে দাঁড়িয়ে আছে বলে উদ্বোধনের পর মন্তব্য করেছেন এরদোয়ন। স্থানীয়দের প্রতিবাদ সত্ত্বেও মসজিদটি নির্মাণ করতে দেওয়ায় জার্মান সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি; খবর বিবিসির।

প্রায় ৩০ লাখ তুর্কি জার্মানিতে বসবাস করেন। তুরস্কের সঙ্গে এদের নিবিড় যোগাযোগ আছে। এদের বিশাল একটি অংশের বাস কোলনে।

এরদোয়ানের সফরকে সামনে রেখে শহরটিতে বড় ধরনের অভিযান চালায় জার্মান পুলিশ।

শনিবার এরদোয়ানের মসজিদ উদ্বোধন উপলক্ষে কোলনে তার সমর্থক ও তার বিরোধী, উভয়পক্ষই জড়ো হয়েছিল।

মসজিদের বাইরে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার মানুষকে জড়ো হওয়ার অনুমতি দেওয়ার পরিকল্পনা নিলেও নিরাপত্তা শঙ্কায় পরে তা বাতিল করে শহর কর্তৃপক্ষ।

কোলনের কেন্দ্রীয় এ মসজিদ একটি মুসলিম ধর্মীয় গোষ্ঠীটি নির্মাণ করেছে। তাদের সঙ্গে তুরস্কের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের উত্তেজনা কমানোই এরদোয়ানের এবারের জার্মানি সফরের লক্ষ্য ছিল। কিন্তু সফরকালে জার্মানির সমালোচনা করে তুর্কি প্রেসিডেন্ট তুমুল বিতর্কের জন্ম দেন।

তুর্কি প্রেসিডেন্টের এ সফর ২০১৬ সালে ব্যর্থ অভ্যুত্থানচেষ্টার পর তুরস্কজুড়ে চালানো সরকারি নিপীড়নসহ দু্ই দেশের মধ্যে থাকা বিভিন্ন মতপার্থক্যেও আলো ফেলেছে।

শুক্রবার রাতে রাষ্ট্রীয় ভোজে দেওয়া বক্তৃতায় এরদোয়ান জার্মানির বিরুদ্ধে ‘সন্ত্রাসীদের আশ্রয়’ দেওয়ার অভিযোগ করেছেন বলে সেখানে উপস্থিতদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

জার্মানির বহুল প্রচারিত সংবাদমাধ্যম বিল্ড এরদোয়ানের এ বক্তব্য ছেপে তার কড়া সমালোচনা করেছে। এরদোয়ানের বক্তব্যকে ‘জার্মানির বিরুদ্ধে বিদ্বেষমূলক’ হিসেবেও বর্ণনা করেছে তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য