বিরামপুরের মাদ্রাসা ছাত্রী অপহরণের নয়দিন পর কালিয়াকৈর থেকে উদ্ধারদিনাজপুর (বিরামপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার নবম শ্রেণীর এক মাদ্রাসায় পড়–য়া ছাত্রী অপহরনের নয়দিন পর বিরামপুর থানা পুলিশ গাজিপুর জেলার কালিয়াকৈর থানা থেকে উদ্ধার করেছে। ২৮ সেপ্টেম্বর মামলার এক দিন পর তদন্তকারী পুলিশ অফিসার গাজিপুর জেলার কালিয়াকৈর থানা থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার পূর্বক অপহরণের মুলহোতা বাবুল হোসেনকে গ্রেফতার করেছে। এ বিষয়ে বিরামপুর থানার অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা নং-৩৭।

২৯ সেপ্টেম্বর শনিবার বিরামপুর থানার তদন্ত ওসি মোঃ রইছ উদ্দিন থানায় অভিযোগের সূত্রে জানান, গত ১৯ সেপ্টেম্বর সকালে অপহরণের শিকার বিরামপুর শালবাগান দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর ছাত্রী (১৫) মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে মোঃ বাবুল হোসেন (২৫) ও অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জন মিলে রাস্তা থেকে জোর পূর্বক মাইক্রতে তুলে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে বিরামপুর থানায় অভিযোগ হলে অনুসন্ধানে থানার এস আই মোঃ মতিয়ার রহমান সঙ্গীয় ফোর্সসহ গাজিপুর জেলার কালিয়াকৈর থানার পুলিশের সহায়তায় ছাত্রীকে উদ্ধার পূর্বক অপহরণের মুলহোতা বাবুল হোসেনকে গ্রেফতার করে বিরামপুর থানায় আনেন।

এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদে অপহনের অভিযোগে বিরামপুর থানা হাজতে আটককৃত বাবুল হোসেন।

জানায়, মোবাইল ফোনে ওই ছাত্রীর সাথে তার পরিচয় হয়। সেই থেকে প্রেমের সর্ম্পক গড়িয়েছে। চলতি মাসের ১৯ তারিখে উভয়ের পরামর্শেই সকাল ১১ টায় বিরামপুর থেকে বাসে করে গাজিপুরের কালিয়াকৈর থানায় একটি ভাড়া বাসায় উঠে বিয়ে করে বসবাস করছিল। সে একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করে। বাবুল হোসেন জেলার ফুলবাড়ী থানার চকিয়াপাড়া গ্রামের আঃ সাত্তারের ছেলে।

মোবাইল ফোনে অপহরণের শিকার মাদ্রাসা ছাত্রীর সাথে এ বিষয়ে কথা বললে সে জানায়, ঘটনার দিন বাবুল হোসেন ও ৩/৪ জন অজ্ঞাত পরিচিত ব্যক্তি তাকে মাদ্রাসা আসার সময় রাস্তা থেকে জোরপূর্বক অপহরণ করে মাইক্রতে তুলে নিয়ে অজ্ঞান করে। এর পর জ্ঞান ফিরে দেখতে পায় সে একটি অপরিচিত স্থানে ঘরের মধ্যে রয়েছে।

এ বিষয়ে ওই ছাত্রীর ভাই মামলা বাদী মজিদুল সরকার জানান, তার বোন নিয়মিত মাদ্রাসায় পড়ালেখা করতে যেত। প্রেমের সর্ম্পক সর্ম্পূন্য মিথ্যা। এ বিষয়ে তিনি বিরামপুর থানায় অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছেন।

বিরামপুর থান াপুলিশ অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতারকৃত বাবুল হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর শনিবার দুপুরে কোর্টে সোপর্দ করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য